মোবাইল আপে বন্দি রেলের টিকিট বুকিং, যাত্রীদের ভোগান্তির অবসান

মোবাইল আপে বন্দি রেলের টিকিট বুকিং, যাত্রীদের ভোগান্তির অবসান

 

রাজীব মুখার্জী, গার্ডেনরিচ, হাওড়াঃ মাত্র কয়েক সেকেন্ডের জন্য ট্রেন মিস। এমন ঘটনা প্রায়শই সম্মুখীন হোন রেল যাত্রীরা। বিশেষ করে নিত্য যাত্রীরা। কারণ খুঁজতে গিয়ে সামনে এসেছে একাধিক বিষয়। যার মধ্যে অন্যতম কারন হল টিকিট কাউন্টারের দীর্ঘ লাইন। এবার সেই জীর্ণপ্রায় ধ্যান ধারণাতেই পরিবর্তন আনতে চলেছে আইআরসিটিসি। আর, দীর্ঘক্ষণ দাঁড়াতে হবে না লাইনে, অনলাইনেই কাটা যাবে জেনারেল টিকিট। ভারতীয় রেলওয়ের এই UTS অ্যাপের সুবিধা পাবেন সমস্ত সাধারণ মানুষ। এতদিন পর্যন্ত কয়েকটি জায়গাতেই চালু ছিল এই সার্ভিস। এবার থেকে এটি হবে সার্বজনীন। প্রথমে অবশ্য টিকিট বুকিংয়ের নিয়মটি ছিল একেবারে আলাদা। সেখানে শুধুমাত্র রিজার্ভেশন এবং এসি কামরার টিকিটই কাটা যেত অনলাইনে। এবার সেই তালিকাতে যুক্ত হল জেনারেল টিকিটও। কিন্তু, এবার প্রশ্ন কী এই UTS অ্যাপ? কীভাবেই বা কাজ করবে এই অ্যাপটি?

দক্ষিণ পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক জানাচ্ছেন, মূলত দীপাবলীর আগেই যাত্রীরা পাবেন এই অনলাইন টিকিট কাটার পরিষেবাটি। যাত্রীরা UTS অ্যাপ, UTS মোবাইল টিকিট ওয়েবসাইট এবং আইআরসিটিসি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জেনারেল টিকিট কাটতে পারবেন। তবে, টিকিট কাটা ছাড়াও অ্যাপটির মাধ্যমে ট্রেনের স্ট্যাটাস, সময় সহ ট্রেন সংক্রান্ত অন্যান্য খুঁটিনাটি বিষয়েও জানতে পারবেন যাত্রীরা। এখনও পর্যন্ত খুব সীমিত কয়েকটি জায়গার বাসিন্দারাই পরিষেবাটি পেয়েছেন। যার মধ্যে মুম্বই অন্যতম কিন্তু এখন আই.আর.সিটি.সি.র দৌলতে সকলেই সুবিধাটি পাবেন।

নিজের স্মার্টফোনকে ব্যবহার করে অ্যাপেল কিংবা গুগল প্লে স্টোর থেকে ইউজাররা ডাউনলোড করে পারবেন UTS অ্যাপ৷ টিকিট কেনার জন্য যাত্রীরা আইআরসিটিসি ওয়েবসাইট কিংবা utsonmobile.indianrail.gov.in ওয়েবসাইটটি ভিজিট করতে পারেন৷ টিকিট কাটার পদ্ধতিটিও থাকছে খুবই সহজ৷ প্রথমে অ্যাপের মাধ্যমে নিজের নাম রেজিস্টার করান৷ নাম, মোবাইল নম্বর, শহরের নাম সহ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ তথ্যের প্রয়োজন পড়বে রেজিস্টারের সময়। তবে, এই অ্যাপের মাধ্যমে অগ্রীম টিকিট বুকিং সম্ভব হবে না। পেপারলেস এই টিকিটগুলির প্রিন্টআউট যাত্রীরা স্টেশনের এ. টি ভি. এম. থেকে করাতে পারবেন।

দক্ষিণ পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিকের আশা রেল বোর্ডের এই সিদ্ধান্তে উপকার পাবেন অগুন্তি মানুষ বিশেষ করে যারা নিত্য যাত্রী। কমবে টিকিটের লম্বা লাইনও।

You May Share This
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *