গোটা বিশ্বে দেখানো হবে ‘প্যাডম্যান’, মত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার

গোটা বিশ্বে দেখানো হবে ‘প্যাডম্যান’, মত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার

ওয়েবডেস্ক, বেঙ্গল টুডে:

অক্ষয় কুমার ও রাধিকা আপ্তে-সোনম কাপুর অভিনীত ‘প্যাডম্যান’ দেখার পর মুগ্ধতার শেষ নেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এবং তাঁর সাথে সাথে প্রতিউত্তর (হু)। আর এই হু-এর উদ্যোগে পৃথিবী জুড়ে এই ছবি দেখানো হবে। তবু মুখভার অক্ষয়ের। কারণ বেশ কিছু রাজ্যের পুরুষরা তাঁদের সঙ্গিনীকে এই ছবি দেখতে দিতে রাজি নন। তাই হতাশ অক্ষয় এই মানসিকতার বিরুদ্ধে সোচ্চার হলেন।

উল্লেখ্য অক্ষয় কুমার অভিনীত ‘প্যাডম্যান’ রিলিজ হয়েছে এক সপ্তাহ হয়ে গেছে। এরই মধ্যে দেশের বিভিন্ন প্রদেশে এর প্রদর্শন নিয়ে আলাদা প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে। উত্তরপ্রদেশ, বিহার এবং হরিয়ানায় মহিলাদের ‘প্যাডম্যান’ দেখার ক্ষেত্রে বাধা হয়ে উঠেছেন পুরুষেরা। আর এই বিষয়টিই রুষ্ট করেছে অক্ষয়কে। এক্ষেত্রে ১৭ ই ফেব্রুয়ারি মুম্বইয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তা জানালেন আক্কি। পাশাপাশি তিনি বলেন, “দেশ-বিদেশ মিলিয়ে আমার ছবির ব্যবসা এখনও পর্যন্ত যা হয়েছে, তাতে আমি খুশি। ১৮ কোটি টাকায় এই ছবি তৈরি করেছি। এখনও পর্যন্ত দেশ-বিদেশ মিলিয়ে দুশো কোটির ব্যবসা হয়ে গিয়েছে। তবে সেটা কিন্তু আমাদের মূল উদ্দেশ্য ছিল না। যে উদ্দেশ্য থেকে ‘টয়লেট, এক প্রেমকথা’ বানানো হয়েছিল, সেই একই উদ্দেশ্যে ‘প্যাডম্যান’ তৈরি। স্বাস্থ্য, পরিচ্ছন্নতা ও মানসিকতায় পরিবর্তন আনার বিষয়ে তৈরি করা হয়।”

অক্ষয়ের মতে, ভারতে পঞ্চাশ ভাগেরও বেশি মানুষ সঠিক শৌচালয় ব্যবহার করতেন না। ‘টয়লেট,এক প্রেমকথা’ রিলিজের পর সে ব্যাপারে প্রভূত পরিবর্তন ঘটেছে। সিনেমা খুব তাড়াতাড়ি সমাজের বেশিরভাগ মানুষকে যুক্ত করতে পারে। একইভাবে ‘প্যাডম্যান’ তৈরির মূল উদ্দেশ্য হল, ঋতুস্রাব নিয়ে নারী সমাজের সচেতনতা বাড়ানো। অর্থ উপার্জন এখানে প্রথম শর্ত নয়।

তিনি আরও বলেন, “২০১৮-তেও দেশের শতকরা ৮২ শতাংশ মহিলা স্যানিটারি ন্যাপকিন ব্যবহার করেন না। খুব দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা। এই অজ্ঞতার মূলে কুঠারাঘাত করে যত তাড়াতাড়ি চেতনার আলোয় আনা যায়, সেটাই ছিল আমার আসল উদ্দেশ্য।” প্রসঙ্গগত পাকিস্তানও প্যাডম্যান নিষিদ্ধ করেছে। অপরদিকে রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে এই ছবিকে করমুক্ত ঘোষণা করেছেন। মুম্বইয়ের মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন এবং আরও বেশকিছু সামাজিক সংস্থা অনেক কম দামে স্যানিটারি ন্যাপকিন মহিলাদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে। মুম্বই শহরের বাইরে থেকে যেসব মহিলারা ট্রেন বা বাসে করে শহরে আসা যাওয়া করেন, সেই বাস ডিপো এবং রেল স্টেশনে স্যানিটারি ন্যাপকিনের ভেন্ডিং মেশিনের ব্যবস্থা করছে মহারাষ্ট্র সরকার।

You May Share This
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.