মারণ রোগের বিরুদ্ধে ছোট্ট ঋত্ত্বিকার লড়াই! সহযোদ্ধা হয়েছেন অভিষেকের যুবযোদ্ধারা

মারণ রোগের বিরুদ্ধে ছোট্ট ঋত্ত্বিকার লড়াই! সহযোদ্ধা হয়েছেন অভিষেকের যুবযোদ্ধারা

ক্যান্সারের সঙ্গে ঋত্ত্বিকার লড়াই

ক্যান্সারের সঙ্গে ঋত্ত্বিকার লড়াই

পান্ডুয়া ব্লকের সিমলাগড় ভিটাসিন অঞ্চলের ঋত্ত্বিকা দত্ত। বয়স ৯ বছর ৭ মাস। ফুটফুটে এই শিশুকে লড়াই চালাতে হচ্ছে মারণ রোগের সঙ্গে। কলকাতার কলকাতার টাটা মেডিকেল সেন্টারে ব্লাড ক্যান্সারের চিকিৎসা চলছে।

 দরকার ২৫০ ইউনিট রক্ত

দরকার ২৫০ ইউনিট রক্ত

ঋত্ত্বিকা বাঁচাতে হলে প্রতি সপ্তাহে দরকার ২০ ইউনিট রক্ত। সব মিলিয়ে ২৫০ ইউনিট রক্ত। রক্ত জোগাড়ে হিমশিম খাচ্ছেন ঋত্ত্বিকার বাবা। পান্ডুয়া ব্লক তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি সৌরভ বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাধ্যমে এই খবর পৌঁছায় তৃণমূল যুব কংগ্রেসের রাজ্য সহ সভাপতি শান্তনু বন্দ্যোপাধ্যায়ের কানে।

পরিবারের পাশে অভিষেকের যুবযোদ্ধারা

পরিবারের পাশে অভিষেকের যুবযোদ্ধারা

শান্তনু বন্দ্যোপাধ্যায় সঙ্গে সঙ্গে নির্দেশ দেন যুবযোদ্ধাদের মধ্যে থেকেই রক্তদাতা খুঁজে বের করতে‌। শুধু নির্দেশই শেষ নয়, বৃষ্টি মাথায় করেই সৌরভ ও ২৫ জন যুবযোদ্ধাকে নিয়ে বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর পৌঁছে যান কলকাতার ওই বেসরকারি হাসপাতালে। কথা হয় চিকিৎসকদের সঙ্গে।

 ঋত্ত্বিকার হাতে উপহার

ঋত্ত্বিকার হাতে উপহার

ছোট্ট ঋত্ত্বিকার হাতে উপহার তুলে দিয়ে তার বাবা-মার সঙ্গে কথা বলেন যুবযোদ্ধারা। আশ্বাস দেন, রক্ত নিয়ে দুশ্চিন্তা করবেন না। ঋত্ত্বিকা যতদিন না সুস্থ হচ্ছে, চিকিৎসকরা যতদিন রক্ত দিতে বলবেন সেই দায়িত্ব তারা নিলেন। শান্তনু বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই প্রশংসনীয় মানবিক উদ্যোগ যেন আরও একবার দেখিয়ে দিল অভিষেকের বাংলার যুবশক্তি কর্মসূচির সার্থকতা।

You May Share This
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.