আমিরাতে বাংলাদেশি শ্রমিক নিয়োগে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর

আমিরাতে বাংলাদেশি শ্রমিক নিয়োগে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর

মিজান রহমান, ঢাকা:

বাংলাদেশ থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাত ১৯ ক্যাটাগরিতে কর্মী নেবে। এ বিষয়ে ১৬ই এপ্রিল দুবাইয়ের স্থানীয় সময় দুপুর সোয়া ১২টা নাগাদ বাংলাদেশ ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। বাংলাদেশের পক্ষে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব নমিতা হালদার এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের পক্ষে মিনিস্ট্রি অব হিউম্যান রিসোর্সেস অ্যান্ড এমিরেটাইজেশনের আন্ডার সেক্রেটারি সাইফ আহমেদ আল সুআইদি নিজ নিজ দেশের পক্ষে সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন। সমঝোতা স্মারকটি স্বাক্ষরের সঙ্গে সঙ্গে কার্যকর হয়েছে।

১৮ই এপ্রিল ঢাকায় প্রাপ্ত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানা গেছে। এতে বলা হয়, বিগত কয়েক মাসের আলাপ-আলোচনার চূড়ান্ত পর্যায়ে উভয় দেশের মধ্যে শেষ পর্যায়ের আলোচনার পর সমঝোতা স্মারকটি চূড়ান্ত করা হয়। পরে এটি স্বাক্ষরিত হয়। সংযুক্ত আরব আমিরাতের মিনিস্ট্রি অব হিউম্যান রিসোর্সেস অ্যান্ড এমিরেটাইজেশনের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী নাসের আল হামলি এ সময় উপস্থিত ছিলেন। সমঝোতা স্মারক অনুযায়ী, বাংলাদেশ থেকে ১৯টি ক্যাটাগরির কর্মী নিয়োগের বিধান, পদ্ধতি, রিক্রুটমেন্ট এজেন্সি ও উভয় দেশের সরকারের দায়িত্ব ও কর্তব্য, কর্মীদের অধিকার, সুযোগ-সুবিধা, এমপ্লয়ারদের দায়িত্ব ও কর্তব্য, নিয়োগ চুক্তির বিধান ও পৃথক একটি বিরোধ নিষ্পত্তির ব্যবস্থা প্রভৃতির উল্লেখ রয়েছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতে এসব কর্মীর স্বার্থ রক্ষার্থে ২০১৭ সালে কার্যকর হওয়া আইনের আলোকে সমঝোতা স্মারকটিতে শ্রমিক, মালিক ও উভয় দেশের সরকারের দায়িত্ব বর্ণিত হয়েছে। নিরাপদ, সুশৃঙ্খল ও দায়িত্বশীল শ্রম অভিবাসনের লক্ষ্য অর্জনের বিষয়গুলো বিবেচনায় রেখে সমঝোতা স্মারকটি স্বাক্ষর করা হয়। সমঝোতা স্মারকটি বাস্তবায়নের জন্য উভয় দেশের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে একটি জয়েন্ট কমিটি গঠনের বিধান রাখা হয়েছে। এই কমিটিকে কতিপয় সুনির্দিষ্ট দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে। এ সমঝোতা স্মারকের মাধ্যমে সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাংলাদেশি কর্মী পাঠানোর প্রক্রিয়া আবার শুরু হবে।

You May Share This

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.