বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাংলাদেশের ৬ জন ক্রিকেটার বাদ

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মিজান রহমান, ঢাকা:

প্রথমে গুঞ্জন ছিল বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারের সংখ্যা কমিয়ে আনা হচ্ছে ২ জন। এরপর শোনা গেলো, ৪ জনকে বাদ দেওয়া হচ্ছে। ১৬ থেকে নামিয়ে সংখ্যাটা করা হচ্ছে ১২ জনে; কিন্তু গুঞ্জনের এটাও সত্যি হলো না। মোট ৬ জনকে বাদ দেওয়া হয়েছে বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে। বাদ পড়া ক্রিকেটারদের মধ্যে রয়েছেন সৌম্য সরকার, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, কামরুল ইসলাম রাব্বি, ইমরুল কায়েস, তাসকিন আহমেদ এবং সাব্বির রহমান। শুধু ৬ জন কমানোই নয়, ক্রিকেটারদের বেতন বাড়ানোর যে গুঞ্জন ছিল, সেটাও সত্য হয়নি। নতুন চুক্তিবদ্ধ ১০ ক্রিকেটারের কোনো বেতন-ভাতা বাড়ানো হয়নি।

১৮ই এপ্রিল বিসিবির কার্যনির্বাহী কমিটির সভা শেষে সাংবাদিকদের সামনে এ ঘোষণা দেন বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন। গত এক বছর বিসিবির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারদের সংখ্যা ছিল ১৬। এর মধ্যে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ১৪ জন আর শিক্ষানবিশ ক্যাটাগরিতে ছিলেন আরও দুইজন। আগে থেকেই জানা, সেই তালিকা ছোট হচ্ছে; কিন্তু এতটা ছোট হবে- তা কল্পনাও করতে পারেনি কেউ। মাঝে বেতন বাড়ানো নিয়েও অনেক গুঞ্জন শোনা গেছে। কেউ কেউ এমনও ভেবেছিলেন, এবারও বুঝি মোটা অংকের টাকা বাড়নো হবে মাশরাফি-সাকিবদের; কিন্তু ভেতরের খবর অন্য। বেতন বাড়লেও সেটা হবে আনুপাতিক হারে। মূল কথা হলো, আগে থেকেই বোর্ড সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছিল, এবার আর এত বেশি ক্রিকেটারের সঙ্গে বার্ষিক চুক্তিতে যাবে না। এ কারণে বোর্ড থেকে নির্বাচকদের পরিস্কার জানিয়ে দেয়া হয়েছে, ন্যুনতম যারা তিন ফরম্যাটেই খেলে, তাদেরকেই কেবল চুক্তিতে রাখতে। এর বাইরে, যারা অন্তত এক বা দুই ফরম্যাটে নিয়মিত একাদশে থাকেন (যেমন ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি) তাদেরকেও চুক্তিতে রাখা হবে। সে কারণেই সংখ্যাটা ১৬ থেকে একলাফে কমিয়ে আনা হলো ১০-এ।

জানা যায়, বোর্ডের ইচ্ছা অনুযায়ী নতুন চুক্তির জন্য ১২ জনের তালিকা প্রেরণ করা হয়েছিল বোর্ড সভায়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কেন্দ্রীয় চুক্তিতে রাখা হলো মাত্র ১০ জনকে।

প্রসঙ্গত গত বছর বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের বেতন এক লাফে দ্বিগুণ এবং দ্বিগুণেরও বেশি করা হয়েছিল। এবারও বেতন বৃদ্ধির কথা শোনা যাচ্ছিল। মূলত আনুপাতিক হারে সর্বোচ্চ ২৫ থেকে ৩০ শতাংশ বেতন বাড়ানো হতে পারে। এর আগে ‘এ প্লাস’ শ্রেণিতে থাকা মাশরাফি-সাকিব-তামিম-মুশফিকদের বেতন আড়াই লাখ থেকে বাড়িয়ে করা হয় ৪ লাখ টাকা। ‘এ’ শ্রেণিতে থাকা মাহমুদউল্লাহর ২ লাখ থেকে বাড়িয়ে ৩ লাখ; ‘বি’ শ্রেণিতে ইমরুল কায়েস, মুমিনুল হক, সাব্বির রহমান ও সৌম্য সরকারের দেড় লাখ থেকে বাড়িয়ে ২ লাখ; ‘সি’ শ্রেণিতে রুবেল হোসেন, তাসকিন আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান ও মোসাদ্দেক হোসেনদের ১ লাখ থেকে বাড়িয়ে দেড় লাখ এবং ‘ডি’ শ্রেণিতে নতুন অন্তর্ভুক্ত হওয়া ক্রিকেটারদের বেতন ৭৫ হাজার থেকে বাড়িয়ে করা হয় ১ লাখ টাকা।

সম্পর্কিত সংবাদ