32 C
Kolkata
Thursday, May 30, 2024
spot_img

ISIS Terrorist in Bengal: বেঙ্গালুরু বিস্ফোরণের পর দুই অভিযুক্ত ছিলেন খাস কলকাতার হোটেলেই! নাম কী লিখেছিল?

Web Desk, Kolkata, 12th April 2024: তদন্তে দেখা গিয়েছে ২৮ দিন ধরে বাংলায় ঘুরেছে ওই দুই সন্দেহভাজন জঙ্গি। কিন্তু ঘুনাক্ষরেও টের পায়নি পুলিশ। এখানেই শেষ নয়, গত ১৩ মার্চ কলকাতার লেনিন সরণির একটি হোটেলে উঠেছিল ওই দুই সন্দেহভাজন জঙ্গি। হোটেলের রেজিস্টারেও তারা নাম লিখেছিল।

কলকাতা

রামেশ্বরমের ক্যাফেতে বিস্ফোরণের ঘটনায় সন্দেহভাজন দুই জঙ্গিকে গ্রেফতার করেছে এনআইএ। পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ, কর্ণাটক, কেরল ও তেলাঙ্গানা সঙ্গে যোগাযোগ রেখে তাদের গ্রেফতার করা হয় বলে দাবি করা হচ্ছে। কাঁথি থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। এদিকে গোটা ঘটনার রাজনৈতিক চাপানউতোরও চরমে উঠেছে। ধৃতদের নাম আব্দুল মাতিন তাহা ও মুসাভির হুসেন সাজিব। এই সাজিবই ক্যাফেতে আইইডি বসিয়েছিল বলে অভিযোগ।

এদিকে ক্য়াফে বিস্ফোরণে জড়িতদের খোঁজ দিতে পারলে ১০ লাখ টাকা পুরস্কারের কথাও ঘোষণা করেছিল এনআইএ। শেষ পর্যন্ত ধরা পড়েছে ওই দুই যুবক। তবে তদন্তে দেখা গিয়েছে ২৮ দিন ধরে বাংলায় ঘুরেছে ওই দুই সন্দেহভাজন জঙ্গি। কিন্তু ঘুনাক্ষরেও টের পায়নি পুলিশ। এখানেই শেষ নয়, গত ১৩ মার্চ কলকাতার লেনিন সরণির একটি হোটেলে উঠেছিল ওই দুই সন্দেহভাজন জঙ্গি। হোটেলের রেজিস্টারেও তারা নাম লিখেছিল। কিন্তু দু নম্বর নামটির ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে তারা একটি বিশেষ নাম লিখেও কেটে দিয়েছে।

কলকাতা

সূত্রের খবর, আসলে ওই নামটিতেও পরিচিত ছিল ওই জঙ্গি। সেকারণে তারা ওই নামটি লিখেছিল। কিন্তু সেই নামটি তারা কেটে দেয়। এরপর অন্য নাম লেখে। রেজিস্টারে তারা টুরিস্ট পরিচয় দিয়েছিল। জানিয়েছিল তারা দার্জিলিং থেকে আসছে। এরপর তারা চেন্নাই ফিরে যাবে। তবে একদিন তারা কলকাতার হোটেলে থেকেই চলে যায়। এদিকে ২৮দিন ধরে তারা বাংলায় ছিল বলে খবর মিলছে। আর সেটাই উদ্বেগ বাড়িয়েছে বিভিন্ন মহলে। বিধাননগর থানায় ওই দুই সন্দেহভাজন জঙ্গিকে আনা হয়। তাদের হাসপাতালে মেডিক্যাল টেস্টের জন্য নিয়ে আসা হয়েছিল। তারা সংবাদমাধ্য়মের কোনও প্রশ্নের উত্তর দিতে চায়নি। কিছুক্ষণের জন্য তাদের বিধাননগর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল।

কলকাতা

প্রসঙ্গত বৃহস্পতিবার রাতে দিঘার হোটেলে হানা দেয় এনআইএ। সেখান থেকেই তাদের গ্রেফতার করে। নিউ দিঘার হোটেলে তারা ছিল বলে খবর। এদিকে রামেশ্বরমে বিস্ফোরণের ঘটনার পর এভাবে বাংলায় জঙ্গিদের আশ্রয় নেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে স্বাভাবিকভাবেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছিল। জানা যায় ভুয়ো আধার কার্ড জমা দিয়ে তারা কলকাতায় ছিল বলে অভিযোগ। তবে হোটেল কর্তৃপক্ষ সংবাদমাধ্য়মে ১৩ মার্চে এসেছিল তারা। এরপর ১৪ মার্চ তারা চেক আউট করে দুপুর ১২টায়। পর্যটক পরিচয় দিয়ে তারা এসেছিল। তারা চেন্নাই যাবে বলে জানিয়েছিল।

কলকাতা

যে নামটি তারা কেটেছে সেটি হল "ভিগ্নেশ"। আসলে ভিগ্নেশ নামে একজন পরিচিত ছিল। সেকারণে নামটা লিখেও তারা কেটে দেয়। এদিকে ১২ মার্চ ও ১৩ মার্চও তারা কলকাতার হোটেলে ছিল বলে খবর। শিলিগুড়ি থেকে তারা এসেছিল বলে জানিয়েছিল।

Related Articles

Stay Connected

17,141FansLike
3,912FollowersFollow
21,000SubscribersSubscribe
- Advertisement -spot_img

Latest Articles