অসম থেকে ফিরল তৃণমূলের প্রতিনিধি দল, বিমানবন্দরেই উগরে দিলেন ক্ষোভ

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

 

ওয়েবডেস্ক, কলকাতাঃ অবশেষে অসম থেকে কলকাতায় এসে পৌঁছলেন তৃণমূলের প্রতিনিধি দল। কলকাতা বিমানবন্দরে নামার পরই অসমে হেনস্থা হওয়া নিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন তাঁরা। অসমে হেনস্থা প্রসঙ্গে ফিরহাদ হাকিম বলেন, “একজন মন্ত্রী বা সাংসদকে যখন যেতে দেওয়া হচ্ছে না, তখন আমরা বিশ্বাস করি না অসমের গরীব প্রান্তিক মানুষরা সুবিচার পাবেন।”

তিনি বলেন আরও বলেন, “স্বাধীন ভারতে ভারতবাসী হিসেবে সব জায়গায় যাওয়ার অধিকার আছে আমাদের। অসমে তৃণমূল সংসদীয় প্রতিনিধি দল গিয়েছিলেন এনআরসি চালুর পরবর্তী পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে। এই প্রক্রিয়ায় কি ভুল হচ্ছে তা দেখে সংসদে আলোচনা করাই আমাদের উদ্দেশ্য ছিল। কিন্তু আমাদের বিমানবন্দরেই আটকে দেওয়া হয়। আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাবো।”

অপরদিকে এই প্রসঙ্গে অবশ্য পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির অভিযোগ ছিল তৃণমূলের প্রতিনিধিরা অসমে গিয়েছিলেন দাঙ্গা বাধাতে, কিন্তু সেই অভিযোগ অস্বীকার করে তৃণমূল প্রতিনিধিরা দাবি করেন, দাঙ্গাবাজ দল বিজেপিই। তারা যে রাজ্যেই গিয়েছে সেখানেই দাঙ্গা বাধিয়েছে। তাঁদের প্রশ্ন ৫ জন সাংসদ ও একজন বিধায়ক ও একজন মন্ত্রী কী কোনও ভিনরাজ্যে গিয়ে দাঙ্গা বাধাতে পারেন?

সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায়ের অভিযোগ, “আমাদের যে ১৪৪ ধারার জারির নির্দেশ দেখানো হয়, সেখানে লেখা ছিল সঙ্গে আগ্নেয়াস্ত্র বা বিস্ফোরক থাকলে আটকানো হবে। কিন্তু আমাদের সঙ্গে সেরকম কিছুই ছিল না, তবু আমাদের রীতিমতো অনুপ্রবেশকারীদের মতো করে আটকানো হয়। এমনকী তার প্রতিবাদে আমরা যখন ধর্ণা দিচ্ছিলাম সেসময়ও আমাদের নিগ্রহ করা হয়।”

তৃণমূলের অভিযোগ এনআরসি চালু করে যেভাবে বহু বছর ধরে বসবাসকারী মানুষদের নাম নাগরিকের তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে, তাতে শুধু বাঙালী নয়, বিহারি, নেপালি – সব সম্প্রদায়ের মানুষই বর্তমানে বিপদে পড়েছেন। তাঁদের সঙ্গে যে আচরণ করা হয়েছে, দলের সঙ্গে কথা বলে তার তীব্র প্রতিবাদ জানানো হবে বলে জানান তাঁরা।

সম্পর্কিত সংবাদ