দেবের হাত ধরে প্রকাশিত হতে চলেছে ‘পদ্মশ্রী সুবাসিনী মিস্ত্রী’র কাহিনী

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ওয়েবডেস্ক, বেঙ্গল টুডে:

আন্তর্জাতিক নারীদিবসে প্রকাশিত হল দেবের নতুন ছবির কাহিনী ও তাঁর নাম। দেবের এই বারের ছবিটি সম্পূর্ণ বাস্তব ঘটনানির্ভর। প্রযোজক দেব প্রতিবার নতুন কিছু করার পথ বেছে নিয়েছেন। অর্থাৎ চ্যাম্প, ককপিট, কবীর প্রভৃতি । এবার দর্শকদের উপহার দিচ্ছেন ‘পদ্মশ্রী সুবাসিনী মিস্ত্রী’। আর এই ছবির পরিচালক হিসাবে রয়েছেন অনিকেত চট্টোপাধ্যায়।

মূলত এই ছবিতে সুবাসিনী মিস্ত্রীর জীবন কাহিনী বর্ণিত হবে। অর্থাৎ সুবাসিনী মিস্ত্রীর স্বামী বিনা চিকিৎসায় মারা যাওয়ার পর তাঁর ১ বছরের শিশুকন্যা সহ আরও ৩ ছেলে মেয়েকে নিয়ে তাঁর জীবন যুদ্ধের লড়াই এবং তাতে সফলতা প্রাপ্তি। কারন সুবাসিনী দেবী পড়াশুনা জানতেন না কিন্তু জীবনধারণের জন্য বাজারে আনাজপাতি বিক্রি করেছেন। আর এই ভাবেই তিনি তাঁর গোটা সংসারটাকে সামলেছেন পাশাপাশি ছেলেমেয়েদের পড়াশুনা শিখিয়েছেন, ছেলেকে চিকিৎসক বানিয়েছেন। এমনকি দৈনন্দিন জীবনে নিরন্তন লড়াই করে তিনি একটি হাসপাতাল গড়ে তোলেন। যার নাম ‘হিউম্যানিটি হসপিটাল’। ‘তিনি চান যাতে বিনা চিকিৎসায় কোন মানুষকে প্রান হারাতে না হয়। ‘

এই ছবির বিষয়ে পরিচালক অনিকেত চট্টোপাধ্যায় বলেন, এই ছবির জন্য আপাতত মুখ্য চরিত্রে ৩ জনের কথা ভাবা হয়েছে। তবে অভিনেত্রীদের লোকেশনে গিয়ে, সেখানে ৩ মাস থেকে সেখানকার জীবনযাপন রপ্ত কতে হবে। আর সেই লোকেশনের জন্য কয়েকটি জায়গার নামও ঠিক করা হয়েছে যেমন বারুইপুর, ক্যানিং, এবং ঠাকুরপুকুর।

এছাড়া তিনি আরও বলেন, সুবাসিনীর ১৮-৭০ বছরের জন্য রাখা হবে চারটি লুক। এক জন অভিনেত্রীকেই দেখা যাবে এই চার লুকে। প্রস্থেটিক মেকআপের সাহায্য নেওয়া হবে। দেবের প্রযোজনায় সব ক’টা ছবিতেই নায়িকা হিসেবে দেখা গিয়েছে রুক্মিণীকে। স্বভাবতই প্রশ্ন এখানেও কি দেখা যাবে তাঁকে? এ নিয়ে পরিচালক বা প্রযোজক মুখ খুলতে রাজি না হলেও রুক্মিণীর থাকার বিষয়টা কিন্তু অস্বীকার করেননি। অপরদিকে ছবির কথা ভাবার তিন-চার দিনের মাথায় সুবাসিনীর ‘পদ্মশ্রী’ পাওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছিল। তাই যখন পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান হবে, সেটা আলাদা করে তুলে নেবেন অনিকেত। ছবিটি মুক্তি পাবে এ বছর বড়দিনের ছুটিতে।

সম্পর্কিত সংবাদ

Leave a Comment