অঞ্জলি দিতে গিয়ে অগ্নিদগ্ধ বছর ৪ এর অনিশা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শান্তনু বিশ্বাস, হাবড়া:

২২ শে জানুয়ারি উত্তর ২৪ পরগনা জেলার হাবড়া থানার অন্তর্গত চোংদা মোড় এলাকায় সকাল প্রায় ১০.৩০ নাগাদ সরস্বতী পুজোর আঞ্জলি দিতে গিয়ে পঞ্চ প্রদীপ থেকে আগুন লেগে ৪ বছরের শিশু গুরুতর আহত হয়। আহত শিশুর নাম অনিশা চ্যাটার্জী। বর্তমানে কলকাতার আর জি কর হাসপাতালে আশঙ্কাজনক অবস্থা চিকিৎসাধীন রয়েছে শিশুটি।

সুত্রের খবর, সরস্বতী পুজো উপলক্ষ্যে এদিন সকালে আর পাঁচটা সাধারন শিশুদের মতোই উত্তর ২৪ পরগনা জেলার হাবড়া থানার অন্তর্গত চোংদা মোড় এলাকার বছর ৪ এর বাসিন্দা অনিশা চ্যাটার্জী সকাল ১০.৩০ নাগাদ প্রতিবেশি এক জ্যেঠুর বাড়িতে অঞ্জলি দিতে যায় এবং সেখানেই যখন সবাই পূজোয় ব্যাস্ত ঠিক সেই সময় সকলের চোখের আড়ালে পঞ্চ প্রদীপ থেকে সিনথেটিক এর শাড়ি পরে সাজগোজ করে যাওয়া অন্নেসার শাড়ির আচলে আগুন লাগে। আর সেই আগুন খুব দ্রুতই ছোট্ট অনিশার শরীরে ছড়িয়ে পরে। এরপরই বছর ৪ এর ছোট্ট অনিশার বাবা খোকন চ্যাটার্জি ও মা পায়েল কে খবর দেওয়া হয় এবং তাঁরা তড়িঘড়ি হাবড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে তাকে ভর্তি করেন।

হাসপাতাল সুত্রে খবর, চিকিৎসকরা জানান অনিশারশরীরের সাথে সাথে মুখের অংশটাও খুব খারাপ ভাবে পুড়ে গেছে। এর দরুন চিকিৎসার সময় অনিশার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে কলকাতার আর জি কর হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। বর্তমানে কলকাতা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বছর ৪ এর অন্নেসা। তবে তার শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ বলেই জানা যায়।

প্রসঙ্গগত অনিশার বাবা খোকন চ্যাটার্জী পেশায় গাড়ি চালক এবং মা পায়েল সংসার সামলান। তাদের এই অভাবের সংসারে অনিশাই একমাত্র সন্তান। এমনকি পাড়ার সকলের প্রিয় মেয়েটার সাথে এমন ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটায় সরস্বতী পুজোর আনন্দ সকলের কাছে ফিকে হয়ে যায়। অপরদিকে চোখের জল থামছে না অনিশার মা পায়েলের। পাশাপাশি অনিশার বাবা খোকনবাবু বলেন, “অঞ্জলি দিতে গিয়ে এমন ঘটতে পারে, তা তারা ভাবতেই পারছেন না।”

সম্পর্কিত সংবাদ