মাকে মিষ্টি খাওয়ানোর অপরাধে গুনধর ছেলের হাতে মার খেল বছর ৯৪ এর বাবা

  শান্তনু বিশ্বাস,অশোকনগরঃ  মাএ পাঁচ দিন আগে বিজয়ার শুভেচ্ছা নিতে গুরুজনদের পায়ে প্রনাম করে মিষ্টি মুখ করে। ঠিক তেমনই স্বামীর পায়েও হাত দিয়ে প্রণাম করেন স্ত্রী। তাই নিজে একটু বাজার থেকে মিষ্টি এনে খাইয়ে দেন স্ত্রীকে। কিন্তু স্ত্রী ডায়বেটিসের রোগী। তাই তাকে মিষ্টি খাওয়ানোই ছিল বড়ো অপরাধ বছর ৯৪ এর বৃদ্ধা স্বামী মানিক লাল বিশ্বাসের। আর এই অপরাধের শাস্তি হিসাবে প্রকাশ্যে বাড়ির উঠোনের উপর তার ছেলে খালি গায়ে দাড়িয়ে অকথ্য ভাষায় কথা বলে পরে সপাটে চড় গুনোধর ছেলের। সাথে শারীরিক নির্যাতন করে গুনধর ছেলে প্রদীপ বিশ্বাস। ৩ মিনিট ১৭ সেকেন্ডের…

শেষ শ্রদ্ধা জানাতে সকাল থেকে ভির নতুন পল্লী পাঠক বাড়িতে

শান্তনু বিশ্বাস, হাবড়াঃ কথা দিয়ে কথা রাখেনি তার আগে সব শেষ হয়ে গেল। সিকিম ঘুরে এসে কালী পুজো করবে একটু অন্য রকম ভাবে। সিকিম থেকে ফেরা হল ঠিকই। কিন্তু কফিন বন্দি হয়ে শববাহী গাড়িতে চেপে। রেজি বাজারে কাছে কুলাকের পাহাড়ি খাদেই পরে নিভে গেল পাঠক বাড়ির সব সপ্নের সাথে ৪ টি তরতাজা প্রাণ। সাথে প্রাণ যায় এক আত্মীয়ও-র। মছলন্দপুর সহ নতুনপল্লির গোটা এলাকায় এদিন যেন অন্ধকার নেমে রয়েছিল। উত্তর ২৪ পরগনার হাবড়া থানার অন্তর্গত মছলন্দপুরের নতুনপল্লিতে গত ৪০ বছর ধরে বসবাস করছেন পাঠক পরিবার। ব্রজেন্দ্র পাঠক (৭৪) রাজ্য জনস্বাস্থ্য কারিগরী…