মৃতদেহ উদ্ধারকে নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্য

সন্দীপ ঘোষ, ঝাড়গ্রামঃ ঝাড়গ্রাম শহরের ১ নং ওয়ার্ড কদমকানন এলাকার একটি বাড়ির মধ্য থেকে এক ব্যক্তির পচা গলা ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করল ঝাড়গ্রাম থানার পুলিশ। মৃত ব্যক্তির নাম গৌতম বিশ্বাস(৩৮) ঠিকাদারি সংস্থার অধীনে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারের কাজ করতেন। এদিন সকালে প্রতিবেশীরা বন্ধ ঘরের ভেতর থেকে দুর্গন্ধ পেয়ে পুলিশে খবর দেয় সাথে সাথে এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। প্রতিবেশীরা পুলিশের উপস্থিতিতে দরজা ভেঙে দেখে গৌতম বাবু গলায় দড়ি দেওয়া অবস্থায় বাড়ির মধ্যে ঝুলছেন। পরিবার সুত্রে জানা যায়, মানসিক অবসাদের কারনে গৌতম বাবু আত্মঘাতী হয়েছেন, তিনি মদ্যপ অবস্থায় আসতেন বলে বাড়িতে প্রায় অশান্তি হত।…

রাজ্যে নবম স্থান অধিকার করে নজির ঝাড়গ্রামের অর্পন দ্বিবেদী

সন্দীপ ঘোষ, ঝাড়গ্রাম: নবম স্থান অধিকার করেছে ঝাড়গ্রামের কেকেআই ইন্সটিটিউশনের ছাত্র অর্পন দ্বিবেদী। উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফলে উৎফুল্ল অর্পন। অর্পন ভালো চিকিৎসক হয়ে দুঃস্থ মানুষজনদের সেবা করতে চাই। তার মা ও স্বপ্ন দেখেন ছেলে চিকিৎসক হয়ে দুঃস্থ মানুষের সেবা করবে। তাই সকাল দশটা থেকে টিভির পর্দায় চোখ রেখে বসেছিলেন তাঁর মা। এই বুঝি ছেলের নাম ঘোষনা হবে। মাধ্যমিকে হয়নি এবার উচ্চমাধ্যমিকে হবে মনেতে এই জোর কাজ করছিল অপর্না দেবীর। অবশেষে টিভির পর্দায় ভেসে উঠল বহু কাঙ্খিত তার নাম। সেই মুহুর্তের আনন্দ অপর্না দেবী ভাষায় প্রকাশ করতে পারছিলেন না। ঝাড়গ্রাম শহরের কুমুদ…

পেট্রোল ও ডিজেলের আকাশ ছোঁয়া মূল্য বৃদ্ধিতে প্রতিবাদ মিছিল

সন্দীপ ঘোষ, ঝাড়গ্রাম : পেট্রোল ও ডিজেলের আকাশ ছোঁয়া মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে ঝাড়গ্রাম জেলা তৃনমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে এক প্রতিবাদ মিছিলের আয়োজন হয়। এদিন ঝাড়গ্রাম জেলার কুমুদ কুমারী স্কুল চত্বর থেকে শহরের পেট্রোল পাম্প পর্যন্ত তৃনমূল কংগ্রেসের যুবকরা এক বর্নাঢ্য রেলি করে। কেন্দ্রীয় সরকারকে ধিক্কার জানিয়ে ব্যপক হারে ডিজেল ও পেট্রোল এর বৃদ্ধির প্রতিবাদে জেলার যুব নেতা কর্মীরা প্রতিবাদ মিছিলে সামিল হয়।এদিনের মিছিলে উপস্থিত ছিলেন জেলা যুব সভাপতি দেবনাথ হাঁসদা, জেলা সভাপতি অজিত মাইতি, বিধায়ক সহ দেড় হাজার তৃনমূল যুব কর্মী সমর্থক।

উচ্চমাধ্যমিকে আবারও জয়জয়কার জেলার, প্রথম জলপাইগুড়ির গ্রন্থন

অরিন্দম রায় চৌধুরী, কলকাতাঃ আবারও জেলাগুলি উচ্চমাধ্যমিকের ফলাফলকে নিয়ন্ত্রণ করলো, সমগ্র জেলাগুলি ভাল ফল করায় বোঝাই যাচ্ছে সমগ্র পশ্চিমবাংলায় শিক্ষার অবস্থান কোন পর্যায় এই মুহূর্তে আসীন। প্রতি বছর যেমন বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রছাত্রীরা ভাল ফল করে এসেছে কিন্তু এবছরের উচ্চমাধ্যমিকে সকলকে অবাক করে প্রথম স্থানটি অধিকার করেছেন কলা বিভাগের গ্রন্থন সেনগুপ্ত। জলপাইগুড়ি জেলা স্কুলের গ্রন্থনের প্রাপ্ত নম্বর ৪৯৬, শতাংশের বিচারে গ্রন্থন পেয়েছেন ৯৯.০২ শতাংশ নম্বর। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন ঋত্বিক কুমার সাহা। পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুক হ্যামিলটন হাইস্কুলের ছাত্র ঋত্বিকের প্রাপ্ত নম্বর ৪৯৩ (৯৮.৬ শতাংশ)। উচ্চমাধ্যমিকের তৃতীয়স্থানটি অধিকার করেছেন বর্ধমান মিউনিসিপ্যাল হাইস্কুলের তিমিরবরণ…