ঝাড়গ্রামের টাউন হলে তপশিলি উপজাতি আলোচনা সভায় মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়

ঝাড়গ্রামের টাউন হলে তপশিলি উপজাতি আলোচনা সভায় মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়

সন্দীপ ঘোষ, ঝাড়গ্রাম :

“পশ্চিমবাংলার আদিবাসীরা ভারতবর্ষের অনান্য জায়গার আদিবাসীদের তুলনায় সবচেয়ে ভালো আছেন। এই ভালো থাকাকেই বিজেপির নেতারা শ্মশান বানিয়ে দেবো, মাটিতে পুঁতে দেবো এই চক্রান্ত করে চলেছে”….

১৫ই জুন ঝাড়গ্রামের টাউন হলে আয়োজিত তপশীলি উপজাতি সভায় যোগ দিতে এসে পার্থ চট্টোপাধ্যায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জানান, ব্লক স্তরে সংগঠনকে পুনঃগঠন করার বার্তা দেন। পাশাপাশি তরুণ, মহিলা, জাতি, উপজাতিকে প্রাধান্য দেওয়ার কথা জানান মহাসচিব।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, “সভায় সাংসদ জানান মধ্যপ্রদেশে আড়াই লক্ষ স্কোয়ার কিমি ছত্রিশগড়ে সাড়ে আটশো, গুজরাতে সাড়ে ছয়শো জঙ্গল কেটে আদিবাসীদের ঘর ছাড়া করা হয়েছে। সেখানে এ রাজ্যে দশগুন অতিরিক্ত জঙ্গল তৈরী করা হয়েছে। একজন ও বেঘর হয়নি। একইরকম স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে ঝাড়খন্ড, মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থানে স্বাস্থ্য পরিষেবার ক্ষেত্রে অর্ধেক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রও গড়ে ওঠেনি। অথচ অতিরিক্ত স্বাস্থ্য কেন্দ্র সহ একাধিক সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল গড়ে উঠেছে। এছাড়াও সমস্ত পরিষেবা মানুষ পেয়েছেন”।

সেই সূত্র ধরে পার্থ চট্ট্যোপাধ্যায় আরো বলেন, “ঝাড়গ্রামে সংগঠন কে শক্তিশালী করার পাশাপাশি মানুষের অভাব অভিযোগ কে অগ্রাধিকার দিতে হবে। জঙ্গলমহলের এমন কোন কাজ নেই যেটা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় করেননি। কিন্তু সেই কাজ মানুষের কাছে পৌছাচ্ছে না, তার তদারকি জোরদার করতে হবে। পৌরসভার ক্ষেত্রে ওয়ার্ড কমিটির লিস্ট ৭ দিনের মধ্যে দেওয়ার নির্দেশ সেই লিস্ট দেখে চুরান্ত করা হবে”।

দলীয় নেতৃত্বদের বার্তা, প্রয়োজনে মানুষের যোগাযোগ করে যে সমস্ত এলাকায় উন্নয়ন প্রয়োজন সেগুলি লিপিবদ্ধ করে, উন্নয়ন কে আরো জোরদার করার কথা মনে করিয়ে দেন। আগামী ৩০ তারিখ হূল দিবস, রাজ্য স্তরের পালন হবে ঝাড়গ্রামে এবং ব্লক স্তরের পালন হবে সাঁকরইলে বলে জানান তিনি।

You May Share This
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *