Monday, August 15, 2022
spot_img

বিপুল পরিমান টাকা আত্মসাৎকারীদের গ্রেফতার করল পুলিশ

অরিন্দম রায় চৌধুরী, বারাকপুর, বেঙ্গলটুডেঃ

চলতি বছরে সম্প্রতি কিছু দিন আগেই ব্যারাকপুর পৌরসভার ভাইস চেয়ারম্যানের নাম করে শান্তিপুরের এমএলএ অজয় দের নাম করে শান্তিপুরের জেলা তৃনমুলের সভাপতির ছেলে অয়ন দত্তকে ভুয়ো ফোন করে ১,৬০,০০০/- টাকা আত্মসাত করার অভিযোগে ২৩ শে অক্টোবর তিনজন দুষ্কৃতিকে আটক করে টিটাগড় থানার পুলিশ।

পুলিশ সুত্রে খবর মূলত শান্তিপুরের তৃনমুল জেলা সভাপতির ছেলে অয়ন দত্তকে ফোন করে ব্যারাকপুর পৌরসভার ভাইস চেয়ারম্যান দেবাশিষ ঘোষদোস্তিদারের নাম করে ব্যারাকপুর পৌরসভার চন্দনপুকুর বাজারের সংলগ্নএকটি জমিতে পিপিপি মডেলে একটি ব্যাবসাইক কাজের ঠিকা পাইয়ে দেবার নাম করে প্রথমে দেড় লক্ষ টাকা ও পরে আরো ১০ হাজার টাকা নিয়ে ব্যারাকপুর এস.ডি.ও অফিসে আসতে বলেন। এখানেই শেষ নয়, এরপর শান্তিপুর থেকে অয়ন দত্ত ব্যারাকপুর এস.ডি.ও অফিসে আসলে ফের ফোন করে বলেন তিনি সেই মুহুর্তে ই-টেন্ডার নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন আর তাই তার বদলে অন্য একজন ছেলেকে পাঠাচ্ছেন তার হাতে সম্পূর্ন টাকা দিয়ে দিতে। যথারিতি অয়ন দত্ত সব টাকা তুলে দেন ঐ অপরিচিত ব্যক্তিটির হাতে।আর এই টাকা পাওয়ার পর থেকেই সম্পূর্ন রুপে নিখোঁজ হয়ে যায় ঐ ব্যক্তি, এমনকি ফোন নম্বরটাও বন্ধ করে রাখে তারা।

পুলিশি সুত্রে জানা যায়, ধৃত তিন যুবকের নাম রাহুল যাদব, সোমনাথ পাল, বাপী দে। এই তিনজন দুষ্কৃতি মধ্যে রাহুল যাদব, সোমনাথ পাল এই দুজনেরই বাড়ি মধ্যমগ্রাম এবং বাকি একজন অর্থাৎ বাপী দে এর বাড়ি ব্যারাকপুরের কালী তলা অঞ্চলে।

প্রসঙ্গত এই দুষ্কৃতিরা এই একইরকম ঘটনার জেরে ঠিক এক বছর আগে বিধাননগর পুলিশ কমিশনারেটের পুলিশের হাতেও ধরা পরে। এখানেই শেষ নয়, ২০১৫ সালে পানিহাটির চেয়ারম্যানের নাম করে বেশ কিছু টাকা লুঠ করায় খড়দহ থানার পুলিশের হাতেও গ্রেফতার হয় এই দুষ্কৃতিরা। আর তারপরই চলতি বছরে ১৮ ই অক্টোবর এই ঘটনাটি ঘটে এবং তাতে প্রায় ৩ লক্ষ ১০ হাজার টাকা লুঠ করে দুষ্কৃতিরা। বর্তমানে টিটাগড় থানা এই তিনজন দুষ্কৃতিকে গ্রেফতার করেন যার কেস নং হল ৬৫০/২৩-১০-২০১৭ এবং ২৪ শে অক্টোবর টিটাগড় থানা এই তিনজন দুষ্কৃতিকে ব্যারাকপুর কোর্টে নিয়ে যান।

এক্ষেত্রে ব্যারাকপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান উত্তম দাস বলেন,” এই তিনজন দুষ্কৃতি আমার ও ভাইস চেয়ারম্যান দেবাশিষ ঘোষদোস্তিদারের নামে শান্তিপুরের এমএলএ অজয় দে এবং শান্তিপুরের তৃনমুল জেলা সভাপতির ছেলে অয়ন দত্তকে ফোন করে ব্যারাকপুরে প্রোমটিং এর কাজের জন্য বলেন আর তার জেরেই একজনের থেকে ১ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা ও অপর একজনের থেকে দেড় লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করেন।আর এই কাজের সাথে যুক্ত তিনিজন দুষ্কৃতিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।এর পাশাপাশি তাদের কাছ থেকে বেশ কিছু টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।”

Related Articles

Stay Connected

0FansLike
3,434FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -spot_img

Latest Articles