ঝাড়গ্রাম জেলা পরিষদে সভাধিপতিকে হবে এই নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে

Share Bengal Today's News
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সন্দীপ ঘোষ, ঝাড়গ্রাম:

ঝাড়গ্রাম জেলা পরিষদে সভাধিপতিকে হবে এই নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। জেলা পরিষদের সভাধিপতির দৌড়ে দুই তপশিলি মহিলা। কার ভাগ্যে জুটবে সভাধিপতির এই নিয়ে রাজনৈতিক মহলের গুঞ্জন চলছে। এবার ঝাড়গ্রাম জেলা পরিষদের সভাধিপতির আসনটি তপশিলি জাতি মহিলা সংরক্ষিত। তাই সভাধিপতি হওয়ার দৌড়ে রয়েছেন ঝাড়গ্রাম জেলাপরিষদের আসন থেকে জেতা দুই তপশিলি জাতির মহিলা। গোপীবল্লভপুর দুই ব্লকের তিন নম্বর জেলা পরিষদের আসন থেকে জিতেছেন সুজলা তরাই। এবং বিনপুর এক নম্বর ব্লক থেকে বারো নম্বর জেলা পরিষদের আসন থেকে দাঁড়িয়ে জিতেছেন মাধবী বিশ্বাস। এই দু জনের মধ্যেই এবার সভাধিপতি হওয়ার লড়াই। সুজলা তরাই গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে গোপীবল্লভপুর দুই ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির আসনে থেকে দাঁড়িয়ে তৃণমূলের হয়ে জয় ছিনিয়ে এনে ছিলেন। তিনি গোপীবল্লভপুর দুই পঞ্চায়েত সমিতির বিদ্যুৎ.চিরাচরিত শক্তির কর্মাধ্যক্ষ হয়েছিলেন।

অন্যদিকে বিনপুর এক ব্লক থকে গত পঞ্চায়েত নির্বচনে মাধবী বিশ্বাস জেলাপরিষদের আসনে দাঁড়িয়ে জিতে ছিলেন এবং ঝাড়গ্রাম জেলা পরিষদের শিশু কল্যান দফতরের কর্মাধ্যক্ষ হয়েছিলেন। এবার পঞ্চায়েত নির্বাচনে মাধবী দেবী এবং সুজলা দেবী দুজনেই নিজেদের ব্লক থেকে জেলা পরিষদের আসনে দাঁড়িয়ে জিতেছেন। সুজলা দেবীর পরিবার প্রথম থেকেই তৃণমূলের সাথে রয়েছেন। গোপীবল্লভপুর দুই ব্লকের চর্চিতা অঞ্চলের ভামাল গ্রামের বাসিন্দা সুজলা দেবীর পরিবার এলাকার সিপিআই দলের দ্বারা অত্যাচারিত হয়েছিল বাম জমানায়। তার স্বামীর উপর আক্রমন নেমে এসেছিল। অল্পের জন্য প্রানে বেঁচে ছিলেন।

অন্য দিকে বিনপুর এক ব্লকের নেপুরার বাসিন্দা মাধবী বিশ্বাসের পরিবারও দীর্ঘ দিন যাবৎ তৃণমূলের হয়ে কাজ করে আসছে। তাপশিলি জাতি ভুক্ত দুই মহিলা গৃহবধূ হলেও রাজনীতির ময়দানে দুই জনই দুবার জিতে তাদের রাজনৈতিক দক্ষতা প্রমান করেছেন। যেখানে এবার বিজেপির আগ্রাসনে তৃণমূলের অনেক হেভিওয়েট প্রার্থী হেরেছে সেখানে এই দুই মহিলা নিজেদের জয় অব্যাহত রেখেছেন। বিদায়ী ঝাড়গ্রাম জেলাপরিষদের সভাধিপতি এবং সহ সভাধিপতি সময় মান্ডি এবং সোমা অধিকারি এবার বিজেপির কাছে পরাজিত হয়েছেন।

গোপীবল্লভপুর এক এবং সাঁকরাইল পঞ্চায়েত সমিতি দখল নিয়েছে বিজেপি। জেলার আটটি পঞ্চায়েত সমিতির মধ্যে শাসক দলের হাতে ৬টি পঞ্চায়েত সমিতি। জেলা পরিষদের ষলোটি আসনের মধ্যে সতেরো টি শাসক দলের এবং তিনটি বিজেপির। ঝাড়গ্রাম জেলাপরিষদের সভাধিপতির আসন এবার তপশিলি জাতি মহিলা সংরক্ষিত। আর মাধবী বিশ্বাস এবং সুজলা তরাই এবার জেলা পরিষদের তপশিলি জাতি মহিলা হিসেবে জয় লাভ করেছেন। তবে কাকে সভাধিপতি করা হবে তা নিয়ে মুখে কুলুপ এটেছেন তৃণমূল জেলা নেতৃত্ব। তবে মধবী দেবী এবং সুজলা দেবী দুজনেরই বক্তব্য দল যা ঠিক করবে তাই তারা মেনে নেবেন। তবে দু জনেই মানুষের পাশে থেকে উন্নয়নের কাজ করবেন বলে জানিয়েছেন।

এই বিষয়ে ঝাড়গ্রাম জেলা তৃণমূলের সভাপতি অজিত মাইতি বলেন, “ঝাড়গ্রাম জেলাপরিষদের সভাধিপতির আসন টি এবার তপশিলি জাতি মহিলা সংরক্ষিত। ঝাড়গ্রামে মাধবী বিশ্বাস এবং সুজলা তরাই এই দুজন জেলাপরিষদের তপশিলি জাতি মহিলা সংরক্ষিত আসন থেকে জিতেছেন। তবে সভাধিপতি কাকে করা হবে তা সম্পুর্নভাবে দল ঠিক করবে।”

সম্পর্কিত সংবাদ