হাবড়ায় সম্পত্তির লোভে বৌদি আর ভাইঝিকে ধারালো দাও দিয়ে কোপ

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শান্তনু বিশ্বাস, হাবড়া:

১৫ ই ফেব্রুয়ারি হাবড়া থানার অন্তর্গত বিদ্যাসাগর পল্লি এলাকায় ইলেকট্রিকের লাইন ব্যবহার নিয়ে বাবা আর ছোটো ছেলে অর্থাৎ রণজীৎ শীলের সাথে আশান্তি শুরু হয়। মুলত এই অশান্তির জেরে বাধা দিতে গেলে বৌদি সন্ধ্যা শীলকে এবং তাঁর ভাইঝিকে ধারালো দাও দিয়ে এলোপাতারি কোপ দেয় বলে অভিযোগ।

স্থানীয় সুত্রে খবর, ঘটনার দিন অশান্তি শুরু হলেও রণজীৎ শীলের বৌদি তখনকার মতো অশান্তি থামিয়ে দিলেও পরে রণজিৎ শীল নিজের ঘর থেকে ধারালো দাও দিয়ে এলোপাতারি কোপ দেয় বৌদি সন্ধ্যাকে শীলকে এবং তিনি নিজেকে বাঁচাতে চিৎকার করলে মেয়ে বন্দনা শীল মাকে বাঁচাতে গেলে তাকেও এলোপাতাড়ি কোপ দেয়। এমনকি ভাইঝির মাথায় কোপ মারে রণজিৎ। এরপর স্থানীয় বাসিন্দারাই আহত দুজনকে হাবড়া হাসপাতালে নিয়ে যায়। বর্তমানে দুজনেই হাবড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

অভিযোগ, বেশ কয়েক দিন ধরেই রণজীৎ শীল হুমকি দেয় যে সে তাদের মেরে ঘরে পুতে রেখে দেবে। এমনকি তাঁর জন্য ঘরের ভিতরে গভীর গর্তও করে রাখে। পাশাপাশি বহুবার সে নিজের বাবাকে সম্পত্তির লোভে মারধোর করে বার করে দিত বলেও জানা যায়।
পুলিশি সুত্রে খবর, ঘটনার খবর পাওয়ার পর সাথে সাথে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন হাবড়া থানার পুলিশ এবং অভিযুক্ত রণজীৎ শীলকে গ্রেফতার করেন। আপাতত গোটা ঘটনার তদন্তে হাবড়া থানার পুলিশ।

সম্পর্কিত সংবাদ