শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোট পর্ব মেটাতে গোটা জঙ্গলমহলে জুড়ে বিভিন্ন জায়গায় পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনী রুট মার্চ শুরু হয়েছে

Share Bengal Today's News
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সন্দীপ ঘোষ, ঝাড়গ্রাম:

শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোট পর্ব মেটাতে গোটা জঙ্গলমহলে জুড়ে বিভিন্ন জায়গায় পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনী রুট মার্চ শুরু হয়েছে। শান্তিপূর্ণ ভাবে অবাধ ভোট করাতে সব রমমকের প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে প্রশাসন। ভোটর দিন যাতে কোনভাবে কোন আশান্তী না হয় বা দুষ্কৃতিকারীরা যাতে ভোট পন্ড না করতে পারে তার জন্য শনিবার থেকে ঝাড়গ্রাম জেলার বিভিন্ন থানা এলাকা গুলিতে ব্যাপক ভাবে রুট মার্চ করাল পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনী। নব গঠিত এই ঝাড়গ্রাম জেলা যা জঙ্গলমহল নামে পরিচিত। এই ঝাড়গ্রাম জেলায় এক সময় মাওবাদী অধ্যুষিত ছিল। তাই ভোট কে কেন্দ্র করে মাওবাদী হিংসারও সাক্ষী থকেছে ঝাড়গ্রাম। মৃত্যুর ঘটনাও ঘটেছিল মাওবাদী বিস্ফোরনে এক ভোট কর্মীর। তবে বর্তমানে জঙ্গলমহলে শান্তীর বাতাবরন রয়েছে। বাতাসে নেই আর বারুদের গন্ধ।

২০১১ সালে রাজ্যে ক্ষমতার পালা বদলের পর থেকে জঙ্গলমহল গুলিতে শান্তী ফিরেছে। মাওবাদীদের অস্তিত্ব এখন প্রায় নেই বললেই চলে জঙ্গলমহলে। তবে মাঝে মধ্যে পোস্টার বা মাইন,অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনা ঘটেছে। অতীত দিনের অভিঞ্জতাকে মাথায় রেখে ঝাড়গ্রাম জেলায় সুষ্ঠু নির্বচন করতে বদ্ধ পরিকর পুলিশ প্রশাসন। এদিন বিনপুর থানার দহিজুড়ি, ছ্যেড়বনি, তেতুলডাঙা সহ বিস্তৃর্ন এলাকা জুড়ে র‌্যাফ রুট মার্চ করেছে। কেবল বিনপুর থানা এলাকা নয় ঝাড়গ্রাম জেলার আটি ব্লকের নটি থানা এলাকার বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে চলেছে ব্যাপক হারে রুট মার্চ। রীতিমত অস্ত্র নিয়ে জওয়ানরা টহলদারি করছে মূল রাস্তা সহ গ্রামের ভিতরের রাস্তা গুলিতে। সতর্ক নজরদারি রেখেছে ।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ভোটের দিন এইভাবেই জেলার বিভিন্ন রাস্তা গুলিতে চলবে রুট মার্চ।তারই এদিন মহরা হয়ে গেল বলে জানিয়েছেন প্রশাসনিক আধিকারিকেরা।প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে এবার ঝাড়গ্রাম জেলায় ভোট কর্মীর সংখ্যা প্রায় ছ হাজার। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে এবার নির্বাচন প্রক্রিয়াকে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে তিনহাজার তিনশো পনেরো জন পুলিশ ব্যবহার করা হচ্ছে।

ঝাড়গ্রামের মহকুমা শাসক নকুল চন্দ্র মাহাতো বলেন, “মানুষ যাতে শান্তীপূর্নভাবে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে ভোট কেন্দ্রে পৌছাতে পারেন তার জন্য প্রশাসন প্রয়োজনীয় যা ব্যবস্থা নেওয়ার তাই নিচ্ছে। সব রকম ভাবে প্রশাসন তৈরি ।” উল্লেখ্য এবার পঞ্চায়েত নির্বাচনে মোট ভোটার ৮১৩৭৫৫। সব মিলিয়ে ভোট নির্বিঘ্নে নির্বাচন করতে প্রস্তুত পুলিশ, প্রশাসন।

সম্পর্কিত সংবাদ