ব্যারাকপুর সিন্ডিকেট ব্যাবসাইদের বিরুদ্ধে এইবার কড়া পদক্ষেপ পুলিশের

Share Bengal Today's News
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

অরিন্দম রায় চৌধুরী, ব্যারাকপুরঃ

ইদানীং ব্যারাকপুর শহর জুরেই চলছে সিণ্ডিকেটের দৌরাত্ব্য। তার প্রমাণ সবার চোখের সামনেই দিব্যি কল্যাণী হাইওয়ে ও তার সংলগ্ন সবকটি রাস্তার ধারেই যেখানে সেখানে পড়ে রয়েছে নির্মাণ সামগ্রীর স্তূপ। কোথাও দেখতে পাওয়া যাবে রাস্তার ধারে পড়ে আছে বালি যা রাস্তার প্রায় অর্ধেকটাই দখল করে আছে, কোথাও বা স্টোনচিপ, আবার কোথাও স্তুপাকৃত করে রাখা আছে ইট। আর এই সব নির্মাণ সামগ্রী রাস্তার উপর এসে পরায় প্রায়শই ছোট খাট থেকে বড় দুর্ঘটনা ঘটেই চলেছে।

উল্লেখ্য গত কালই অর্থাৎ ৫ই মে কল্যাণী রোডের আমবাগান এলাকায় একটি লরি একটি সাইকেল আরোহীকে চাপা দেয়। সাইকেল আরোহী রাস্তায় পড়ে গেলে তার মাথার উপর দিয়ে ঘাতক লরিটির চাকা চলে যায়, ফলে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান রুইয়া আজমতলার নিবাসী বছর চল্লিশের গৌতম ওঁরাও।

দীর্ঘ দিন ধরেই ব্যারাকপুর ট্রাফিক বিভাগ থেকে বার বার এই সব নির্মাণ সামগ্রীর মালিকদের মৌখিক অনুরোধ করেও কোন ফল না হওয়াতে এবার ব্যারাকপুর পুলিশের ট্র্যাফিক দফতর ও স্থানীয় টিটাগড় থানা ৬ই মে সকাল থেকেই যৌথ প্রয়াসে কল্যাণী রোড ও তার সংলগ্ন রাস্তাগুলি জুড়ে মাইকিং করে বলা হয়ে যারা রাস্তার দুই ধারে যত্রতত্র গৃহ নির্মাণ সামগ্রী ফেলে রেখেছেন তারা যেন অবিলম্বে আজ অর্থাৎ ৬ই মের সন্ধ্যে ৭টার মধ্যে সেই সব সামগ্রী সরিয়ে নেয়, অন্যথায় টিটাগড় থানার তরফ থেকে আইনানুগ ব্যাবস্থা নেওয়া হবে। এইদিন রাস্তায় মাইকিং করার সময় অবশ্য ব্যারাকপুর কমিশনারেটের এ.সি.পি. ট্র্যাফিক শিবাশিষ ঘোষের নেতৃত্বে ওসি সেন্ট্রাল রাজেশ মণ্ডল ও ওসি ট্র্যাফিক ব্যারাকপুর বিজয় ঘোষ নিজেরা স্বয়ং হাজীর ছিলেন এই অভিযানে।


এদিন অবশ্য ব্যারাকপুরের বিভিন্ন রাস্তার দুই ধারে বসবাসকারী মানুষেদের সাথে কথা বলে অবশ্য ধরা পড়ে তাদের মনের কথা। তাদের মতে পুলিশের এই কাজ নিশ্চিত ভাবেই সাদুবাদের যোগ্য কিন্তু এলাকার রাজনৈতিক নেতারা যতদিন না এই সব অসাধু সিন্ডিকেট ব্যাবসাইদের মাথার উপর থেকে তাদের মদতের হাত তুলে নেবেন ততদিন এই ব্যাধি নির্মূল করা সম্ভব হবে না, হয়তো দুই দশ দিনের জন্য রাস্তা পরিষ্কার রাখলেও আবার কিছুদিন পরই একই চেহারা নেবে ব্যারাকপুর এলাকার রাস্তাঘাট। ব্যারাকপুর পুলিশের ট্র্যাফিক বিভাগ ও টিটাগর থানার এই কড়া মনোভাবে এখন দেখার এই বেআইনি রাস্তার দুই ধারে ফেলে রাখা গৃহ নির্মাণ সামগ্রী আদৌ সরানো যায় কিনা?

সম্পর্কিত সংবাদ