রাঙামাটিতে উপজেলা চেয়ারম্যানের শেষকৃত্যে যাওয়ার পথে গুলি, নিহত ৫

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ওয়েবডেস্ক, বেঙ্গল টুডেঃ

বাংলাদেশের রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় যোগ দিতে যাওয়ার পথে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (এমএন লারমা) নেতা-কর্মীদের মাইক্রোবাসে সন্ত্রাসীদের গুলিতে ৫ জন নিহত ও ৬ জন আহত হয়েছেন।

৪ ঠা মে বেলা ১২টার দিকে উপজেলার বেতছড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। রাঙামাটি জেলার সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জাহাঙ্গীর আলম জানিয়েছেন, ঘটনাস্থলে ৩ জন এবং চিকিৎসার দরুন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর ২ জন মারা যান। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে কারা হামলাকারী সে ব্যাপারে তিনি কিছুই বলতে পারেননি।

নিহতদের মধ্য আছেন- ইউপিডিএফ-গণতান্ত্রিক দলের আহ্বায়ক তপন জ্যোতি চাকমা। অন্য ৪ জন হলেন- সুজন চাকমা, প্রণব চাকমা, সেতু চাকমা ও তাঁদের বহনকারী মাইক্রোবাসের চালক মো. সজীব।

জেএসএস (এমএন লারমা)-এর খাগড়াছড়ি জেলার রাজনৈতিক সম্পাদক বিভূরঞ্জন চাকমা জানিয়েছেন, শক্তিমানের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় যোগ দিতে সংগঠনের মোট ১২ জন নেতাকর্মী ওই মাইক্রোবাসে করে রাঙামাটির নানিয়ারচরের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছিলেন। পথে রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সীমান্তের কাছে বেতছড়ি এলাকায় ওই গাড়িতে ব্রাশফায়ার করা হলে ঘটনাস্থলেই তিনজনের মৃত্যু হয়। শক্তিমানের মতো এ হত্যাকাণ্ডের জন্যও ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টকে (ইউডিপিডিএফ) দায়ী করছে জেএসএস।

উল্লেখ্য এর আগে ৩রা মে বেলা ১১টার দিকে রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জনসংহতি সমিতির (এমএন লারমা) কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি শক্তিমান চাকমাকে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এসময় গুলিবিদ্ধ হন তার সঙ্গে থাকা একই সংগঠনের কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক রূপম চাকমাও। এ ঘটনার জন্য ইউপিডিএফকে দায়ী করা হয়। অবশ্য ইউপিডিএফের মুখপাত্র নিরন চাকমা এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এটা মিথ্যা ও বানোয়াট। এর সাথে ইউপিডিএফের কোনো সম্পৃক্ততা নেই।

সম্পর্কিত সংবাদ