অবৈধ দোকানপাট ভেঙ্গে দিলো পুরসভা

Share Bengal Today's News
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পল মৈত্র, দক্ষিন দিনাজপুরঃ

দক্ষিন দিনাজপুর জেলার সদর শহর বালুরঘাটের আত্রেয়ীড়ির পাশে সরকারি জায়গায় অবৈধভাবে গজিয়ে ওঠা দোকানপাট ভেঙে দিল বালুরঘাট পৌরসভা। এমনকি পাশাপাশি দোকান করার জন্য দখল করা বাঁশ, খুঁটিও তুলে দেয় পৌরসভা। ৩রা মে বিকেলে বালুরঘাট পৌরসভা ও পুলিশ প্রশাসনের উপস্থিতিতে এদিন সরকারি জমি দখল মুক্ত করা হয়। বালুরঘাট পৌরসভার পক্ষ থেকে ওই এলাকায় সৌন্দার্যায়ন করার কথা রয়েছে। তার আগেই খাঁড়ির পার দখল হতে চলেছিল।

যদিও স্থানীয় এলাকাবাসীদের দাবি, বাইরের থেকে লোক এসে প্রথমে জায়গা দখল করতে শুরু করে। সেটা দেখে তারাও জায়গা দখল করে। পৌরসভা সৌন্দার্যায়ন এর কাজ করলে তা করতে পারে। সেক্ষেত্রে তারা বাঁধা দেবে না।

প্রসঙ্গত, বালুরঘাট শহরের পাশ দিয়েই বয়ে গেছে আত্রেয়ী নদী। সেই আত্রেয়ী নদীতেই মিশে আছে শহরের ভেতরে থাকা খাঁড়ি, যা আত্রেয়ী খাঁড়ি বলেই পরিচিতি। আত্রেয়ী খাঁড়ির দুপাশে মাটি কেটে উঁচু করা হয়েছে। পরিকল্পনা রয়েছে সৌন্দার্যায়নের। এরই মধ্যে ওই সরকারি জমি অবৈধভাবে দখল করে করা হচ্ছে দোকানপাট। আবার কেউ কেউ দোকান করার জন্য জমি অধিগ্রহণ করে রেখেছে বাঁশ, খুঁটি, পিলার দিয়ে। বিষয়টি নজরে আসতেই নড়েচড়ে বসে বালুরঘাট পৌরসভা। এদিন বিকেলে পুলিশ প্রশাসনকে সঙ্গে নিয়ে সরকারি জমি দখল মুক্ত করতে ময়দানে নামে তারা। ভেঙে দেওয়া হয় অবৈধভাবে গজিয়ে ওঠা দোকানপাট, জমি দখল করে রাখার বাঁশ সহ অন্যান্য সরঞ্জাম। সেইসঙ্গে এলাকাবাসীদের জানিয়ে দেওয়া হয় ওই এলাকায় দোকানপাট করা যাবে না।

এবিষয়ে স্থানীয় এলাকাবাসী রিতা সরকার জানান, বাইরে থেকে লোক এসে খাঁড়ির পারে দোকান করছে। ফাঁকা জায়গা দখল করছে। সেটা দেখে তারাও দখল করেন ফাঁকা জায়গা। ৩রা মে পৌরসভার পক্ষ থেকে তা ভেঙে দেওয়া হয়। ওই এলাকায় সৌন্দার্যায়নের কাজ করবে পৌরসভা। তাতে কোনও অসুবিধা নেই। তবে তাদের দাবি একটাই, তারা গরীব মানুষ, তাই তাদের কর্মসংস্থানের সুব্যবস্থা করে দিক পৌরসভা।

অন্যদিকে বালুরঘাট পৌরসভার ভাইস চেয়ারম্যান বেবি বর্মণ জানান, ওই এলাকায় সৌন্দার্যায়নের প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে জানতে পারেন সেইসব জায়গা অবৈধভাবে দখল করা হচ্ছে। এরপরই এদিন ওই এলাকার দোকানপাট ভেঙে দেওয়া হয়। এমনকি ওই এলাকায় যাতে নতুন করে আর কোনও দোকানপাট না বসাতে পারে, সেদিকেও নজর রাখছেন তারা।

সম্পর্কিত সংবাদ