ভোটের দিন ঘোষনা হতে না হতেই কোমর বেঁধে প্রচারে নেমে পড়লেন তৃণমূলের নেতা কর্মীরা

Share Bengal Today's News
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সন্দীপ ঘোষ, ঝাড়গ্রাম :

ভোটের দিন ঘোষনা হতে না হতেই কোমর বেঁধে প্রচারে নেমে পড়লেন তৃণমূলের নেতা কর্মীরা। এবারে গোপীবল্লভপুর দুই ব্লক থেকে পঞ্চায়েত জেলা পরিষদের আসনে দাঁড়িয়েছেন স্বপন পাত্র। তিনি পঞ্চায়েত সমিতির সহকারি সভাপতি এবং দলের লালগড়ের পর্যবেক্ষক ও জেলা কমিটির সদস্য। পঞ্চায়েত নির্বাচনে স্বপনবাবু নিজের ব্লক থেকেই জেলা পরিষদের প্রার্থী হিসেবে দাঁড়িয়েছেন। এলাকার জনপ্রিয় মুখ স্বপন বাবু ২৭শে এপ্রিল থেকে দলীয় প্রচার শুরু করেছেন। গোপীবল্লভপুর দুই ব্লকের খাড়বান্দী অঞ্চলে স্বপন বাবু দলীয় সমস্ত কর্মী,সমর্থকদের নিয়ে তৃণমূলের প্রর্থীদের পক্ষে একটি পাড়া বৈঠক করেন। পরে কর্মী,সমর্থকদের নিয়ে খাড়বান্দিতে একটি মিছিলও করেন। স্বপন বাবু গোপীবল্লভপুর দুই ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সহকারি সভাপতি।

ঝাড়গ্রাম জেলা কমিটির সদস্য হওয়ার পাশাপাশি তৃণমূলের পক্ষ থেকে তাঁকে বিশষ দায়িত্ব দিয়ে লালগড়ের পর্যবেক্ষক করা হয়েছে। স্বপন বাবু সবাইকে নিয়ে চলতে চান। এদিন তিনি খাড়বান্দি অঞ্চলের যুব তৃণমূলের নেতা ,কর্মী সহ অঞ্চলের দলের সমস্ত স্তরের নেতা,কর্মীদের নিয়ে বৈঠক করেন। বৈঠকের পাশাপাশি তিনি সবাই নিয়ে পাড়া ভিত্তিক একটি আলোচনায় বসেছিলেন। তিনি এবার গোপীবল্লভপুর দুই ব্লক থেকে চার নম্বর জেলাপরিষদের আসনে প্রার্থী হয়েছেন। খাড়বান্দিতে তিনি বৈঠকের পর কুশমার গ্রামে বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার করেন। প্রচারে তিনি পাঁচ বছরের ক্ষতিয়ান তুলে ধরেন গ্রামবাসীদের সামনে। পাশাপাশি উন্নয়নের জন্য কিকি কাজ করেছে তাও তুলে ধরেন। রাস্তা, ঘাট, পানীয় জল সহ বিভিন্ন ক্ষেত্র যে সব উন্নয়েনের কাজ হয়েছে তা তিনি তুলে ধরেন বাড়ি বাড়ি প্রচারে।

স্বপন বাবু বলেন, “গত কয়েক বছরে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর হাত ধরে আমাদের মতো গ্রামীন এলাকায় যা কাজ হয়েছে তা ভাবা যায় না। এলাকার মানুষ উন্নয়নে খুশি।”

সম্পর্কিত সংবাদ