আয়ুর্বেদ কেন নিয়মিত মধু এবং দারচিনি খেতে বলে জানেন?

Spread the love
  • 9
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    9
    Shares

ওয়েবডেস্ক, বেঙ্গল টুডেঃ

মুঠো মুঠো ওষুধ খেয়ে বাঁচতে চান না প্রাকৃতিক উপাদানের সাহায্য নিয়ে সুস্থ জীবন পেতে চান? তাহলে আপনার আজ থেকে মধু এবং দারচিনি খাওয়ার অভ্যাস করে নিন। কেন? আয়ুর্বেদ বলছে, এই দুই প্রকৃতিক উপাদান একসঙ্গে খেলে শরীরে ভিটামিন এবং মিনারেলের ঘাটতি দূর হয়। সেই সঙ্গে শরীরের প্রতিটি অঙ্গের কর্মক্ষমতা প্রচন্ড বেড়ে যায়।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়: নিয়মিত পরিমাণ মতো দারচিনির পেস্টের সঙ্গে মধু মিশিয়ে খেলে ধীরে ধীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা মারাত্মক শক্তিশালী হয়ে ওঠে। সেই সঙ্গে ক্লান্তিও দূর হয়।

আর্থ্রারাইটিস কমায়: নিয়মিত গরম জলে পরিমাণ মতো মধু এবং দারচিনি পেস্ট মিশিয়ে খেলে জয়েন্টে বা গাঁটে ব্যথা বা প্রদাহ কমতে শুরু করে। সেই সঙ্গে ভঙ্গুর হাড়ও শক্ত হয়ে ওঠে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই আর্থ্রারাইটিসের মতো রোগের প্রকোপ কমতে সময় লাগে না।

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখে: জন্মসূত্রে কি এই রোগ রয়েছে আপনার? তাহলে দারচিনি এবং মধু খাওয়া শুরু করতে হবে। কারণ, এই দুই প্রাকৃতিক উপাদান ইনসুলিনের কর্মক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়। ফলে রক্তে শর্করার মাত্রা বৃদ্ধি পেয়ে টাইপ ২ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা হ্রাস পায়।

ক্যান্সার প্রতিরোধ করে: মধুতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইটোনিউট্রিয়েন্ট, যা শরীর থেকে টক্সিক উপাদান বের করে দিয়ে ক্যান্সার সেলের জন্ম নেওয়ার সম্ভাবনা কমায়। অন্যদিকে দারচিনিতে উপস্থিত অ্যান্টি-টিউমার উপাদান শরীরে কোথাও টিউমার হতে দেয় না। ফলে ক্যান্সার ধারে কাছে ঘেঁষার সুযোগই পায় না।

হার্ট ভালো রাখে: শরীরে খারাপ কোলেস্টেরল বা এলডিএল মাত্রা কমিয়ে হার্ট ভালো রাখতে দারচিনি এবং মধু বিশেষ ভূমিকা পালন করে। শুধু তাই নয়, মধুতে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হার্টের প্রদাহ কমায়। ফলে, যেকোনও ধরনের হার্ট ডিজিজ হওয়ার আশঙ্কা কমে। সেই সঙ্গে কমে হঠাৎ করে হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনাও।

দ্রত হজমে সাহায্য করে: বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে নিয়মিত দারচিনি এবং মধু খেলে পেটের মধ্যে জমে থাকা গ্যাস বেরিয়ে যায়। সেই সঙ্গে হজম ক্ষমতারও উন্নতি ঘটে। স্বাভাবিকভাবেই বদহজম এবং বুক জ্বালার মতো সমস্যা কমে যায়। প্রসঙ্গত, ব্লাডার ইনফেকশনের মতো রোগের চিকিৎসাতেও এই দুটি প্রাকৃতিক উপাদান বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

বাড়তি ওজন কমায়: নিয়মিত সকালে উঠে গরম জলে মধু এবং দারচিনি মিশিয়ে খেলে ঝটপট বাড়তি মেদ ঝরে। ফলে ওজন কমতে সময় লাগে না।

দাঁত ভালো রাখে: দারচিনি এবং মধুতে এমন কিছু পুষ্টিকর উপাদান রয়েছে যা খেলে একদিকে যেমন দাঁত শক্ত হয়, তেমনি এই উপাদান মুখের মধ্যে জমে থাকা ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়াদের মেরে ফেলে। ফলে, মুখের দুর্গন্ধ দূর হয়। দাঁত-মাড়ির সমস্যা কমে।

চুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায়: একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে নিয়মিত মধু এবং দারচিনি খেলে চুলের গোড়ায় পুষ্টির ঘাটতি দূর হয়। ফলে চুল পড়ে যাওয়ার সমস্যা কমতে শুরু করে। সেই সঙ্গে চুলের সৌন্দর্যও বৃদ্ধি পায়।

ত্বকের বয়স বাড়তে দেয় না: সপ্তাহে ২-৩ দিন পরিমাণ মতো দারচিনি পেস্ট নিয়ে তাতে মধু মিশিয়ে যদি মুখে লাগাতে পারেন তাহলে ত্বকের যেকোনও সমস্যা কমে যায়। সেই সঙ্গে মৃত কোষের স্তর সরে ত্বক উজ্জ্বল হয়ে ওঠে। এবং বলিরেখা, বয়সের ছাপও কমতে থাকে।

সম্পর্কিত সংবাদ