নারী ও প্রতিবন্ধীদের প্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষা দিতে হবে : বাংলাদেশ স্পিকার

নারী ও প্রতিবন্ধীদের প্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষা দিতে হবে : বাংলাদেশ স্পিকার

মিজান রহমান, ঢাকা:

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, তথ্যপ্রযুক্তির সুফল সম্পর্কে জনগণকে ধারণা দেওয়া এবং যুব-সমাজকে এ বিষয়ে সচেতন করে গড়ে তুলতে হবে। বিশেষ করে নারী ও প্রতিবন্ধীদের তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষা দিতে হবে। এই শ্রেণির লোকজনকে এই সম্পর্কে সক্ষম ও যোগ্য করে গড়ে তুলতে পারলে তারা একদিন আইসিটি খাতে অবদান রাখতে পারবে। ২৫শে এপ্রিল রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে আয়োজিত ইন্টারন্যাশনাল গার্লস ইন আইসিটি ডে-২০১৮ উপলক্ষে ‘ব্রেকিং ব্যারিয়ার্স অ্যান্ড এমপাওয়ারিং গার্লস ইন আইসিটিও’ বিষয়ক আলোচনা অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

স্পিকার বলেন, তথ্যপ্রযুক্তির সম্ভাবনা ও সুফল তুলে ধরলে তরুণ প্রজন্ম উদ্বুদ্ধ হবে। তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর পেশায় সম্পৃক্ত হতে শিক্ষার্থীরা অনুপ্রাণিত হবে। কেউ যেন পিছিয়ে না পড়ে—এ বিষয়টি নজর দিয়ে ডিজিটাল ডিভাইড কমিয়ে আনলে তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। পাশাপাশি পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য কর্ম অনুসন্ধান সহজ হবে। নারীরা তথ্যপ্রযুক্তিতে দক্ষ হলে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণ সহজতর হওয়ার পাশাপাশি অন্তর্ভুক্তিমূলক প্রবৃদ্ধি অর্জিত হবে।

তিনি আরো বলেন, নারী ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের কাছে রোল মডেল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে নারী ক্ষমতায়ন আজ দৃশ্যমান, পাশাপাশি ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার কাজও সমাপ্তির পথে। এ সময় অনুষ্ঠানে সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, আন্তর্জাতিক সংস্থা এবং বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক।

এছাড়া প্ল্যাান ইন্টারন্যাশনালের হেড অব চাইল্ড প্রোটেকশন তানিয়া নুসরাত জামান, ব্র্যাকের অ্যাডভোকেসি ফর সোশ্যাল চেঞ্জ, টেকনোলজি ও পার্টনারশিপ স্ট্রেনদেনিং ইউনিটের পরিচালক কেএএম মোর্শেদ এবং প্ল্যান ইন্টারন্যাশনালের পক্ষ থেকে হেড অব আইটি রবিউল আলম চৌধুরী প্রমুখ বক্তব্য দেন।

You May Share This

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.