পুলিশের জালে ধৃত ভুয়ো আর.পি.এফ অফিসার

পুলিশের জালে ধৃত ভুয়ো আর.পি.এফ অফিসার

শান্তনু বিশ্বাস, বনগাঁ :

২১শে এপ্রিল বনগাঁ থানার অন্তর্গত স্টেশন রোড সংলগ্ন মা তারা গেষ্ট হাউসে কোন টাকা না দিয়ে দীর্ঘ দেড় মাস থাকার অভিযোগে লজের মালিক মিন্টু কুমার নামক এক যুবকের বিরুদ্ধে বনগাঁ থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। তিনি বলেন, লজে থাকার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ অফিস থেকে কার্ডে লজকে পেমেন্ট করবে এমনটাই জানিয়ে দীর্ঘ দেড় মাস কোন টাকা না দেওয়ায় এদিন তিনি পুলিশের কাছে আসেন। মূলত সেই অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ তদন্ত শুরু করলে জানা যায় যে অভিযুক্ত ওই যুবক ভুয়ো পরিচয়ে ছিলেন।

পুলিশি সুত্রে খবর,বনগাঁ থানার অন্তর্গত স্টেশন রোড সংলগ্ন মা তারা গেষ্ট হাউসে প্রায় দেড় মাস আগে মিন্টু কুমার (৩০) নামে নতুন দিল্লীর এক যুবক কাজের প্রয়োজনে তাকে বনগাঁয় কয়েক মাস থাকতে হবে বলে ওই লজের একটি ঘর ভাড়া নেয় ৷ ওই লজের পক্ষ থেকে পরিচয় পত্র চাইলে অভিযুক্ত বলে তার আসার পথে পরিচয় পত্র হারিয়ে গেছে। কলকাতা মুচিপাড়া থানায় একটি লিখিত করেছে, সেই কপি দেখিয়ে লজে থাকা শুরু করে যুবক। লজে থাকার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ অফিস থেকে কার্ডে লজকে পেমেন্ট করবে বলেও সে জানায় ৷ কিন্তু দীর্ঘ দেড় মাস কোন টাকা না পেয়ে ওই লজের লোকেদের সন্দেহ হয় এবং ২১শে এপ্রিল সন্ধ্যায় পুলিশ কে জানাতেই পুলিশ তদন্তে নেমে জানতে পারে ওই যুবক ভুয়ো পরিচয় দিয়েছে। অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করে বনগাঁ থানার পুলিশ।

তদন্ত সুত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত যুবকের ব্যাগ থেকে উদ্ধার হয় আরপিএফ জওয়ানের দু-তারা সাঁটানো নাম লেখা পোষাক ৷ সে কখনও নিজেকে সি.আর.পি. এফ. কখনও আর.পি.এফ বলতো। এছাড়া পুলিশ কে সে জানায় বর্তমানে বিহারে থাকত এবং ফেসবুকে পরিচয় হওয়া বান্ধবীর সঙ্গে দেখা করতেই বনগাঁ এসেছে। মূলত এই ঘটনার পর অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করে বনগাঁ থানার পুলিশ এবং ২২শে এপ্রিল বনগাঁ থানার পুলিশ হেফাজত চেয়ে বনগাঁ মহকুমা আদালতে পাঠিয়েছে।

You May Share This

Leave a Reply