বিদ্যুতের তার ছেড়াকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ঝাড়গ্রাম শহরে

Share Bengal Today's News
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সন্দীপ ঘোষ, ঝাড়গ্রাম:

বিদ্যুতের তার ছেড়াকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়ায় ঝাড়গ্রাম শহরে। ৪ ঠা এপ্রিল রাতে ঝাড়গ্রাম শহরের রঘুনাথপুর এলাকায় ক্ষুব্ধ জনতা বিদ্যুৎ বণ্টন সংস্থার গাড়িকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখান। বিদ্যুৎ বন্টন কারী সংস্থার গাড়ী দেরীতে আসার অভিযোগে গাড়িতে ভাঙচুর করে এবং বিদ্যুৎ সংস্থার সরাই কর্মীদের ব্যাপক মারধর করে স্থানীয় বাসিন্দারা। এই ঘটনার পরে ব্যাপক আতঙ্কিত হয়ে অফিসে ফিরে আসেন বিদ্যুৎ সংস্থার কর্মীরা।

বন্টন সংস্থার পক্ষে জানানো হয়, পুলিশি নিরাপত্তা না পাওয়া গেলে লাইন সারানো সম্ভব নয়। ঘটনার দরুন লাইনের সারাই কর্মীরা রীতিমত আতঙ্কিত।

পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, ৪ ঠা এপ্রিল সন্ধ্যা নাগাদ রঘুনাথপুরের জনবহুল এলাকার খুব কাছেই একটি বিদ্যুতের তার ছিড়ে পড়ে যায়। এই ঘটনায় স্থানীয় মহলে আতঙ্ক ছড়ায়। আতঙ্কিত মানুষজন ঘরের বাইরে রাস্তায় চলে আসে। তবে স্থানীয়দের অভিযোগ, বিদ্যুৎ বন্টন সংস্থার অফিসে বারেবারে ফোন করা হলেও ফোন তোলেনি কেউ। পরে কল বুক নিলেও বিদ্যুৎ বন্টন সংস্থার সারাই গাড়ি অনেক দেরীতে এসে পৌঁছায় বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। সংস্থার গাড়ি এসে পৌঁছালে এলাকাবাসীর ক্ষোভ গিয়ে পড়ে দুই সারাই কর্মীর উপর। তাদের বেধড়ক মারধর করা হয়। ভাঙচুর চালানো হয় বিদ্যুৎ বণ্টন সংস্থার গাড়িতে। এই ঘটনায় আতঙ্কিত দুই সারাই কর্মী এলাকা থেকে কোন মতে অফিসে পৌঁছান।

এই বিষয়ে বিদ্যুৎ বন্টন সংস্থার ঝাড়গ্রামে ডিভিশন্যাল ম্যানেজার উজ্বল রায় বলেন, স্থানীয় মানুষজন আমাদের কর্তব্যরত দুই কর্মীকে মারধর করেন। গাড়ি ভাঙচুর চালিয়েছে। এর দরুন পুরো ঘটনাটি লিখিত ভাবে থানায় জানিয়েছি। নিরাপত্তা ছাড়া লাইন সারাই করা সম্ভব হবে নয়। ওই লাইনে আপাতত বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।

সম্পর্কিত সংবাদ