মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সন্দীপ ঘোষ, ঝাড়গ্রামঃ

মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনায় উত্তাল হল ঝাড়গ্রাম জেলার নয়াগ্রাম এবং জামবনি ব্লক। দুটি ব্লক অফিসের বাইরে তৃণমূল বিজেপির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ব্লক অফিসের বাইরে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় বিজেপির প্রস্তাবকের মাথা ফাটল। ভাঙচুর করা হল গাড়িতে। অভিযোগের আঙুল উঠেছে শাসক দলের দিকে। যদিও তৃনমূলের নেতৃত্ব অভিযোগ অস্বীকার করে পাল্টা অভিযোগের আঙুল তুলেছেন বিজেপির দিকে। বিজেপির নয়াগ্রাম ব্লকের বালিগেড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা বিজেপির প্রস্তাবক জয়রাম টুডুর মাথা ফেটেছে। এরপর তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় নিকটবর্তী হাসপাতালে ভর্তি করা হয় বলে জানান বিজেপির নেতৃত্ব।

পুলিশ ও প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, এদিন বুধবার নয়াগ্রাম ব্লক অফিসে গ্রামপঞ্চায়েত এবং পঞ্চায়েত সমিতির আসনে মনোনয়ন করতে এসেছিল বিজেপি এবং তৃণমূল দুপক্ষেই। বিজেপির প্রার্থী, কর্মী সমর্থক সংখ্যায় অনেক বেশি ছিল। বিজেপির অভিযোগ, এদিন নয়াগ্রাম ব্লকের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে কয়েকশো বিজেপির প্রার্থী, কর্মী সমর্থক গাড়ি নিয়ে আসছিল। অভিযোগ ব্লক অফিসে পৌছানোর আগেই বড়কাটির কাছে বিজেপির গাড়ি আটকে মারধর করা হয়। এরপর বিডিও অফিসের বাইরে তৃণমূলের লোকজন বিজেপির প্রার্থী, সমর্থকদের উপর ইট বৃষ্টি শুরু করে এবং বাটাম দিয়ে মাটিতে ফেলে বেধড়ক মারধর করা হয়।

বিজেপির অভিযোগ, পুলিশের সামনেই পুরো ঘটনা ঘটলেও পুলিশ হস্তক্ষেপ করেনি বলেনি অভিযোগ। বিজেপির নয়াগ্রাম ব্লকের মন্ডল সভাপতি উৎপল দাসমহাপাত্র বলেন তৃণমূল আমাদের মনোনয়ন করতে দেবে না বলে রীতিমত গাড়িতে ভাঙচুর চালিয়ে কর্মীদের বেধড়ক মারধর করে। আমাদের প্রস্তাবক জয়রাম টুডুকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে। ওদের এত কিসের ভয়। পুলিশের সামনেই পুরো ঘটনা ঘটেছে।

অপরদিকে তৃণমুলের নয়াগ্রাম ব্লক সভাপতি তথা বিধায়ক দুলাল মুর্মু বলেন, তৃণমূল আক্রমন করেনি। বরং বিজেপির লোকজন আমাদের প্রার্থীদের মারপিট করে। এই ঘটনার পর নয়াগ্রাম ব্লক অফিসের সামনে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। জামবনি ব্লকের গিধনি ব্লক অফিসের বাইরে তৃণমূল বিজেপির মধ্যে মারামারি ঘটনা ঘটে।

অভিযোগ, জামবনি ব্লকের নুনীয়া গ্রামপঞ্চায়েত আসনে বিজেপির প্রার্থী মনোনয়ন করতে গেলে তৃনমূল বাধা দেয়। আর এই বাধা দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই দলের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। দুই দলই একে অপরের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছে।

ঝাড়গ্রাম জেলা বিজেপির সভাপতি সুখময় শতপথি বলেন, তৃণমূল আমাদের মনোনয়ন করতে না দেওয়ার জন্য আক্রমন করছে। ওরা যতই সন্ত্রাস করুক আমরা সব আসনে মনোনয়ন করব।

সম্পর্কিত সংবাদ