পঞ্চায়েত প্রধানের স্বাক্ষর নিয়ে প্রতারণার অভিযোগ এক মহিলার বিরুদ্ধে

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শান্তনু বিশ্বাস,বনগাঁঃ

পঞ্চায়েত অফিসে বসে ওয়েষ্ট বেঙ্গল ব্যাকওয়ার্ড ক্লাসেস এন্ড ফিনান্স করপোরেশন এর নাম করে টাকা নিয়ে ফর্ম বিলি করে লোন দেবার নাম করে নিবেদিতা সাহা নামে এক মহিলার প্রতারণার অভিযোগে পঞ্চায়েত অফিস ঘেরাও এবং প্রধানের ঘরে ঢুকে বিক্ষোভ কয়েক হাজার মহিলাদের। ঘটনাটি ঘটে ৩ রা এপ্রিল বেলা দুটো নাগাদ বনগাঁ থানার অন্তর্গত ছয় ঘরিয়া গ্রাম পঞ্চায়েত অফিসে ৷

সূত্রের খবর, ওয়েষ্ট বেঙ্গল বেকোয়ার্ড ক্লাসেস এন্ড ফিনান্স কর্পোরেশন সংস্থার নাম করে এক মহিলা ছড়ঘরিয়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার প্রায় ২৫০ টি স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের ফর্ম ফিলাপ করিয়ে তাদের ৫ লক্ষ টাকা করে লোনের ব্যবস্থা করা হবে বলে আশ্বাস দেন। পাশাপাশি ওই ফর্মটিতে সকলের একাউন্ট নাম্বার জমা নেন এবং প্রত্যেকটি ফর্মে প্রধান জয়ন্ত বিশ্বাস স্বাক্ষরও করেন বলে অভিযোগ। মূলত এই ঘটনার দরুন পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফেটে পরে বিক্ষোভ দেখান স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলারা।

এছাড়া আরও জানা যায়, প্রায় ঐ পঞ্চায়েত এলাকার দেড় হাজার মহিলা ১০০ টাকা জমা দিয়ে ফর্ম ফিলাপ করে। আর এই সকল প্রক্রিয়াটি চলে পঞ্চায়েতের নিচের ঘরে বসে। এমনকি প্রত্যেকটি ফর্মে প্রধান জয়ন্ত বিশ্বাস স্বাক্ষর করেন ৷

অপরদিকে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের বক্তব্য ওয়েষ্ট বেঙ্গল ব্যাকওয়ার্ড ক্লাসেস এন্ড ফিনান্স কর্পোরেশন জেলা শাখার নামকরে তাদের সঙ্গে প্রতারণা করা হয়েছে ৷  সমস্ত বিষয় না জেনে প্রধান কেন পঞ্চায়েত অফিসে তাদের বসতে দিল এবং কেন এই ফর্ম গুলিতে তিনি স্বাক্ষর করল। আমরা তাঁর জবাব চাই বলে এদিন পঞ্চায়েত অফিসে বিক্ষোভ দেখান স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলারা। তাদের দাবী, আমাদের টাকা ফেরত দিতে হবে এবং এই প্রতারণার বিরুদ্ধে সঠিক ব্যবস্থাও নিতে হবে।

এই ঘটনার বিরুদ্ধে পঞ্চায়েত প্রধান জয়ন্ত বিশ্বাস বলেন, আমার কাছে যখন এই লোনের বিষয় আসে তখন আমি ভেরিফাই করতে বলি স্বনির্ভর গোষ্ঠির অজিনা মন্ডল, কাজল অধিকারি ও পার্বতি রায়কে ৷ তারা আমাকে বিষয়টি সঠিক বলার পর আমি স্বাক্ষর করি ফর্মে। আমি চেয়েছিলাম মহিলাদের উপকার হোক। কিন্তু শুনলাম এটা ফ্রড । আমি এই বিষয়ে আইনি ব্যবস্থার জন্য স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের সঙ্গে থাকব ৷

সম্পর্কিত সংবাদ

Leave a Comment