ইটিপি নেই সরকারি হাসপাতালে!

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বেঙ্গলটুডে প্রতিনিধি, ঢাকা:

কয়েকটি বেসরকারি হাসপাতালে থাকলেও সরকারি হাসপাতালগুলোতে ইটিপি নেই। সরকারি হাসপাতালগুলোকে বাইরে রেখে বেসরকারি হাসপাতালগুলোকেই ইটিপি স্থাপনের জন্য জোর তাগাদা দিচ্ছে পরিবেশ অধিদপ্তর। বেসরকারি প্রতিষ্ঠান রায়হান লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী মহঃ ফারুক নেওয়াজ মহসিন বলেন, বিষয়টি গত ২৫শে মার্চ বন ভবনের সেমিনারে পরিবেশ ও বন মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এর সামনে তুলে ধরা হয়েছে।

রাজধানীর আজগর আলী হাসপাতালের সিনিয়র জেনারেল ম্যানেজার এন্ড হেড অফ ইঞ্জিনিয়ারিং প্রকৌশলী মহঃ ইউসুফ আলী প্রধান বলেন, দূষণ রোধে পরিবেশ আইনের আওতায় তরল বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য অন্যান্য শিল্পের সঙ্গে দেশের সরকারি বেসরকারি হাসপাতালগুলোতেও ইটিপি (ইফুলেন্ট ট্রিটমেন্ট প্লান্ট বা তরল বর্জ্য শোধনাগার)) স্থাপনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

ইতিমধ্যে রাজধানীর আজগর আলী হাসপাতাল, স্কয়ার, এ্যাপোলো এবং ইউনাইটেডে হাসপাতালে ইটিপি স্থাপন করা হয়েছে। তবে এখনো ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল, সোহরওয়ার্দী সহ কোনো সরকারি হাসপাতালে ইটিপি স্থাপন করা হয়নি। দুই ধরণের মধ্যে হাসপাতালগুলোতে বায়োলোজিকাল ওয়েস্ট ও শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোতে কেমিকাল ওয়েস্ট বা বর্জ্য হয়ে থাকে। হাসপাতালের ইটিপিতে বায়োলজিকাল ওয়েস্ট ম্যানেজ করা হবে। ইটিপিতে সাধারণ ৫ ধরণের তরল বর্জ্য (অপারেশন থিয়েটারের তরল বর্জ্য, ডায়ালাইসিসের তরল বর্জ্য, ল্যাবরেটরির তরল বর্জ্য, সিএসএসডি অর্থাৎ সেন্ট্রাল সেরাইন স্টোর ডিপার্টমেন্ট) এর তরল বর্জ্য ওটি লন্ড্রি’র তরল বর্জ্য) পরিশোধন করা হয়ে থাকে। রাজধানীর হাসপাতালগুলোর তরল বর্জ্য সাধারণত ওয়াসার ড্রেনে এবং কঠিন বর্জ্য যত্রতত্র ও ডাস্টবিনে ফেলা হয়। তরল বর্জ্য ওয়াসার নর্দমা হয়ে বেশির ভাগ ক্ষেত্রে বুড়ি গঙ্গা, সীতালক্ষা, বালু ও তুরাগ সহ বিভিন্ন নদীতে পড়ে। হাসপাতালের তরল বর্জ্য এভাবে নদীর পানিকে দূষিত করে। এতে নদীর ভিতরের মাছ ও অন্যান্য প্রাণিসহ জীববৈচিত্রের ভয়াবহ ক্ষতি হয়।

পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মহাপরিচালক ড. সুলতান আহমেদ এর পক্ষে সহকারি পরিচালক (প্রচার) সমর কৃষ্ণ দাস জানান, এ যাবত দেশের সনাক্তকরা ইটিপি স্থাপনযোগ্য মোট ২,১৬৫টি শিল্প ইউনিটের মধ্যে ১,৬৬৫টিতে ইটিপি স্থাপন করা হয়েছে। সনাক্তকরা ৫০০ শিল্প ইউনিটে ইটিপি স্থাপন হয়নি। এর মধ্যে ১০৭টিতে ইটিপি স্থাপন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এযাবত ৭৬.০৫ ভাগ ইটিপি স্থাপন হয়েছে। অনুমোদিত ৩০৮টির মধ্যে ১২টিতে জিরো ডিসচার্জ প্লান্ট সম্পূর্ণ বাস্তবায়ন করেছে।

সম্পর্কিত সংবাদ