বিয়ের জন্য নাবালিকা প্রেমিকার চাপ,আত্মঘাতী উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী

Share Bengal Today's News
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শান্তনু বিশ্বাস, বনগাঁ:

১লা এপ্রিল বনগাঁ থানার অন্তর্গত গোবরাপুর বেদিয়াপোতা এলাকায় নিজের বাড়িতেই পাখার সঙ্গে গামছার ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী এক ছাত্র। মৃত কিশোরের নাম সন্তু রায় (১৭)।

সুত্রের খবর, বনগাঁর চাঁদা ললিত মোহন উচ্চ বিদ্যালয়ের উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ছাত্র বছর ১৭-এর সন্তু রায় নিজের বাড়িতেই পাখার সঙ্গে গামছার ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হয়। ১লা এপ্রিল সকাল ৭টা নাগাদ ঘুম থেকে উঠতে না দেখে ডাকাডাকি করতে গিলে সন্তুর ঘরেই তার ঝুলন্ত দেহ দেখতে পায় পরিবারের লোকেরা। এরপর খবর দেওয়া হয় বনগাঁ থানায়।

পারিবারিক সুত্রে খবর, বনগাঁর চাঁদা রায়পুর এলাকার বাসিন্দা একাদশ শ্রেনীর পড়ুয়া এক ছাত্রীর সঙ্গে সন্তুর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সপ্রতি সে সন্তুকে বিয়ে করার জন্য ক্রমাগত চাপ দিয়ে আসছিল, যা নিয়ে সন্তু তার পরিবারকে ঘটনার বিষয় জানালে তারা জানায় বিয়ের বয়স হয়নি তাই এখন বিয়ে দেওয়া সম্ভব নয়। যদিও অনুমান, একদিকে এখন বিয়ে না করলে সাথীকে হারাতে হবে অন্যদিকে পরীক্ষার চাপ। এই দুইয়ের চাপ সহ্য করতে না পেরেই আত্মহত্যর পথ বেছে নেয় সন্তু বলে মনে করছেন পরিবারের লোকজন।

পুলিশি সুত্রে খবর, ঘটনার খবর পাওয়ার পর এদিন বনগাঁ থানার পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করেন এবং অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করেন। বর্তমানে গোটা ঘটনার তদন্তে বনগাঁ থানার পুলিশ। অপরদিকে কিশোর বয়সের ভালোবাসার প্রতিদান হিসাবে নিজের জীবন দিতে হলো উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীকে এই প্রশ্ন এলাকাবাসীর মুখে। ইতিমধ্যে এই ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে বনগাঁর গোবরাপুর বেদিয়াপাড়া এলাকায় ।

সম্পর্কিত সংবাদ