বালি বোঝাই লরির ধাক্কায় মৃত ১

বালি বোঝাই লরির ধাক্কায় মৃত ১

সন্দীপ ঘোষ, ঝাড়গ্রাম:

বালি বোঝাই লরির ধাক্কায় মৃত্যু হয় এক ব্যক্তির। ঘটনাটি ঘটে বেলিয়াবেড়া থানার কেঁদুয়া গ্রামীন পিচ রাস্তার মোড়ে। মৃতের নাম মিহির বিশাল(৪৫)। বাড়ি বেলিয়াবেড়া থানার আঁধারিয়া গ্রামে। এদিন মৃত ব্যক্তির ক্ষতিপূরণের দাবিতে স্থানীয় মানুষজনেরা মৃত ব্যক্তির দেহ রাস্তায় রেখে অবরোধ করেন। পরে পাঁচ ঘন্টা অবরোধ থাকার পর পুলিশি আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেন ক্ষুব্ধ জনতা।

পুলিশি সুত্রে খবর, ৩০শে মার্চ ঝাড়গ্রামের বেলিয়াবেড়া থানার কেঁদুয়া গ্রামীন পিচ রাস্তার মোড়ে একটি বালি বোঝাই লরির ধাক্কায় মৃত্যু হয় বছর ৪৫-এর মিহির বিশাল নামক এক ব্যক্তির। মৃতের বাড়ি বেলিয়াবেড়া থানার আঁধারিয়া গ্রামে। মিহির বিশাল বেলিয়াবেড়া থানার তপসিয়াতে একটি সবজি মান্ডিতে শ্রমিকের কাজ করতেন। তার পরিবারটি অত্যন্ত দুঃস্থ। তিনিই তার পরিবারে একমাত্র রোজগার করতেন। তার বাড়িতে মা, স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। পরিবারটি অত্যন্ত দরিদ্র।

সুত্রের খবর, এদিন বেলা সাড়ে ১২ টা নাগাদ মিহির বাবু সাইকেলে সবজি চাপিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। সেই সময় একটি বালি বোঝাই লড়ি মিহির বাবুকে ওভারটেক করার সময় ধাক্কা মেরে ফলে দেয় এবং তিনি চাকায় পিষ্ঠ হয়ে যান। এই ঘটনার পর স্থানীয় বাসিন্দারা ক্ষোভে ফেটে পড়েন এবং লড়িটিকে আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। অপরদিকে ঘটনার খবর পাওয়ার পর সাথে সাথে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় বেলিয়েবেড়া এবং গোপীবল্লভপুর থানার পুলিশ এবং মৃতদেহ সরিয়ে আনতে গেলে পুলিশকে তুলতে না দিয়ে বিকেল সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত মৃতদেহ আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয় বাসিন্দারা।

যদিও স্থানীয় গ্রামবাসীদের দাবি, অত্যন্ত দরিদ্র মিহির বিশালের পরিবার কে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে এবং তার পরিবারের একজনকে চাকরির ব্যবস্থা করে দিতে হবে। এরপর এদিন বিকেলে পুলিশের পক্ষ থেকে পরিবারটির পাশ দাঁড়ানোর আশ্বাস দেওয়া হয়। এছাড়াও গোপীবল্লভপুর দুই ব্লক তৃণমূলের নেতৃত্বও ঘটনাস্থলে পৌঁছে মধ্যস্থতায় অংশ নেয়। পাশাপাশি তৃণমূলের পক্ষ থেকেও পরিবারটিকে প্রয়োজনীয় সাহায্য দেবার কথা বলা হয়। এমনকি গ্রামবাসীদের অভিযোগ, গ্রামের এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন অসংখ্য বালি বোঝাই গাড়ি বেআইনিভাবে চলে। এর দরুন রাস্তার অবস্থা খুব খারাপ হয়েছে। প্রায়ই দূর্ঘটনা লেগেই থাকে। পুলিশের এবং নেতৃত্বদের কাছ থেকে আশ্বাস পাওয়ার পর অবরোধ তুলে নেয় স্থানীয়রা। অন্যদিকে পুলিশ বালি গাড়ির চালককে গ্রেফতার করে এবং লরিটিকে আটক করে।

You May Share This
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *