পাঁচ বছর পর পাকিস্তান ফিরলেন মালালা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ওয়েবডেস্ক, বেঙ্গল টুডে:

পাঁচ বছর আগে পাকিস্তানের তালেবান নিয়ন্ত্রিত একটি অঞ্চলে মেয়েদের শিক্ষার পক্ষে তার সাহসী ভূমিকার কারণে প্রথম আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের নজরে আসেন মালালা।এরপর প্রানের ভয়ে দেশ ছেড়ে চলে এসেছিলেন মালালা ইউসুফজাই। সেই পাকিস্তানের মাটিতে আবার পা দিলেন মালালা। ২৮শে মার্চ রাত প্রায় পৌনে ২টো নাগাদ মালালাকে নিয়ে এমিরেটসের বিমান যখন ইসলামাবাদে বেনজির ভুট্টো বিমানবন্দরের মাটি স্পর্শ করে। এদিন মালালার সাথে পাকিস্তান এসেছেন তাঁর বাবা-মা। আপাতত তারা বেশ কিছুদিন এখানেই থাকবেন কিন্তু তারা কোথায় থাকবেন সেই বিষয়ে তাদের নিরাপত্তার দরুন জানানো হয়নি। তবে মালালা পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহিদ খকন আব্বাসির সাথে সাক্ষাৎ করবেন বলে জানা যায়।

 প্রসঙ্গগত মালালার জন্মস্থান সোয়াত। মালালা মাত্র ১১ বছর বয়সে মেয়েদের মধ্যে শিক্ষা ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য নিজের বাবার সাথে পাকিস্তানের সোয়াত উপত্যকায় আন্দোলনে নামেন। কিন্তু সাধারন মানুষের চোখে যা সমাজ সংস্কার তাই তালিবান বাহিনীর কাছে অপরাধ। এরপর ২০১২ সালের ৯ অক্টোবর। স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে স্কুল বাসের মধ্যেই তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় তালিবানি বন্দুকবাজ। ঐ ঘটনা তাকে বিশ্বজোড়া পরিচিতি এনে দেয়। পাকিস্তানি তালিবানদের মতে ওই সময় তারা তাকে লক্ষ্য করে গুলি করেছিলো কারণ তারা মনে করে মালালা ‘পশ্চিমা পন্থী’ এবং তিনি পশ্চিমা সংস্কৃতিকে উৎসাহিত করছেন। ভয়াবহ ওই হামলার পরে প্রাণে বেঁচে যান মালালা। পরে যুক্তরাজ্যে চিকিৎসা নেন এবং পরিবারের সঙ্গে সেখানেই বসবাস করতে শুরু করেন। সুস্থ হওয়ার পর শিশুদের শিক্ষা ও অধিকার নিয়ে কাজ শুরু করেন তিনি। ২০১৪ সালে সর্বকনিষ্ঠ ব্যক্তি হিসেবে তিনি নোবেল শান্তি পুরস্কার লাভ করেন।

উল্লেখ্য সম্প্রতি মালালাকে মার্কিন এক ‘টক শো’-এ তাঁকে বলতে শোনা গিয়েছিল, “আমার দেশ বদলানোর জন্য মুখিয়ে রয়েছে। আমি অন্তত এক বারের জন্য দেশের মাটি স্পর্শ করতে চাই।” মালালার সেই আশা পূরণ হল অবশেষে।

সম্পর্কিত সংবাদ