কারারক্ষীদের সজাগ থাকার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

কারারক্ষীদের সজাগ থাকার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

মিজান রহমান, ঢাকা:

কারাগারে বন্দি কোন জঙ্গি, সন্ত্রাসী ও মাদকসেবী যাতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে না পারে সে বিষয়ে কারারক্ষীদের সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। ২০ মার্চ মঙ্গলবার দুপুরে গাজীপুরে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার প্রাঙ্গণে কারা সপ্তাহ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান। এসময় রাষ্ট্রপতি বলেন, কারা বিভাগের জনকল্যাণমূলক কাজে নিজেদেরকে তুলে ধরার যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে। কারাগারের উন্নয়ণের পূর্বশর্ত হচ্ছে পেশাগত দক্ষতা অর্জন। কারাগারে আটক বন্দিদের অগ্রহণযোগ্য চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যগুলো সংশোধন করে সমাজে স্বাভাবিকভাবে বসবাসের উপযোগী করে গড়ে তুলতে হবে। দেশ ও জাতির নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে জঙ্গি, শীর্ষ সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীরা যেন কারাগারের ভেতরে অভিনব কায়দায় জঙ্গি পরিকল্পণা বা সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালাতে না পরে সে বিষয়ে আপনাদের দৃঢ় মনোবলের পরিচয় দিতে হবে।  রাষ্ট্রপতি বলেন, পৃথিবীর কোন মানুষই অপরাধী হয়ে জন্মগ্রহণ করে না। বিভিন্ন প্রতিকূল পরিবেশই তাদেরকে অপরাধী করে তুলে। আইনের দৃষ্টিতে অপরাধী মানুষগুলোর নৈতিক মূল্যবোধ জাগ্রত করতে এবং বিভিন্ন প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তাদেরকে সমাজে পুনর্বাসন করতে কারা কর্তৃপক্ষকে সুনির্দিষ্ট কর্মসূচি গ্রহণ করতে হবে। তিনি আরো বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশ জেল এর বিভিন্ন কর্মকান্ড ও বন্দিদের অপরাধ প্রবণতা কমানোর উদ্যোগ সকলের অকুন্ঠ প্রশংসা পেয়েছে। বিশেষ করে বন্দির হাতকে দক্ষ কর্মীর হাতে রূপান্তরের জন্য কারাগারে কারিগরি প্রশিক্ষণ প্রদানের উদ্যোগ অন্যতম। কারা শিল্পে উৎপাদিত পণ্য সামগ্রী বিক্রয় করে লভ্যাংশের ৫০ শতাংশ বন্দিদের প্রদান করার সিদ্ধান্ত একটি সময়োচিত পদক্ষেপ। এর আগে বেলুন উড়িয়ে কারা সপ্তাহে সূচনা করেন এবং কারারক্ষীদের প্রদর্শিত কুচকাওয়াজ পরিদর্শন ও সালাম প্রহণ করেন। পরে কারাগারকে নিরাপদ রাখার কাজে সাফল্যজনক কর্মকান্ডের জন্য শ্রেষ্ঠ সাত কারা কর্মকর্তাকে ক্রেস্ট প্রদান করেন। রাষ্ট্রপতি অনুষ্ঠানস্থলে এসে পৌঁছালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহম্মেদ চৌধুরী তাঁকে স্বাগত জানান। এ ছাড়া অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আ ক ম মোজাম্মেল হক, কারা মহাপরিদর্শক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিনসহ সহ পদস্থ সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তা ও কারাগারের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

You May Share This
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *