অঙ্গ দান, নতুন জীবন দান

অঙ্গ দান, নতুন জীবন দান

 

রাজীব মুখার্জী, হাওড়াঃ  “যে মানুষটি কখনো রামধেনু দেখেনি সেও জীবনের প্রতিটা রং দেখবে আমার চোখ দিয়ে, যে মানুষের বুকে আমার হৃদপিন্ড স্পন্দন হবে তার জীবিত থাকার ঘোষণা, যে মানুষের শরীরের ভেতরের অঙ্গে রইবে আমার বাস্তবিক উপস্থিতি। ঈশ্বর নই আমি, তবু তো মানুষ; আজ তাই সেই মনুষত্বের অনুভবে অঙ্গীকারবধ্য করলাম নিজেকে, আমার মস্তিষ্কের মৃত্যুর পরেও বেঁচে থাকবো আমি অনেক মানুষের শরীরে, এটাও এক প্রকারের অমরত্ব। আজ নতুন করে মনুষত্বকে অনুভব করব আমি। মানুষ হিসাবে এই কাজটি মানব জীবনের সবচেয়ে বড়ো সম্পাদনা আর তাই আজ আমি গর্বিত নিজের প্রতি। এই অনুভবকে সন্মান দিয়ে হাওড়া জেলাতে এই প্রথম ঘটতে চলেছে মানব শরীরের অঙ্গ প্রতিস্থাপনের ঘটনা। ঘটনাটি ঘটে ১৫ই ডিসেম্বর হাওড়া জেলার ফরশোর রোডের পাশে জয়েন হসপিটালে।

গত ১১ ই ডিসেম্বর অজয় দেশাই নামে একজন বস্ত্র ব্যবসায়ীকে হাওড়ার জয়েন হসপিটালে ব্রেন স্ট্রোকের পরে ভর্তি করা হয়। তাঁর বয়স ছিল ৪৮ বছর। কিন্তু চিকিৎসায় সারা না দিয়ে গতকাল রাতেই তাঁর দেহাবসান হয়। অজয় দেশাই -এর মৃত্যুর পরে তার পরিবার সম্মিলিত ভাবে সিদ্ধান্ত নেয় অজয় দেশাইয়ের অঙ্গ দান করা হবে। সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরেই তারা নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষকে যোগাযোগ করে জানিয়ে দেন।

অজয় দেশাইয়ের পরিবারের এক সদস্য জানান, যে অজয় দেশাইয়ের অঙ্গ দান করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তার স্ত্রী এবং তার গোটা পরিবারের সহমতে এবং তারা চাইছে এই অঙ্গ প্রতিস্থাপন এর মধ্যে দিয়ে তার অঙ্গ দানের মধ্যে দিয়ে আরও কিছু মুমূর্ষু রোগীকে যদি বাঁচানো যায় এই লক্ষ্যে অঙ্গ দান করা হয়।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, “এই সিদ্ধান্ত অজয় দেশাইয়ের পরিবার যখন জয়েন হসপিটালে জানায়, জয়েন হসপিটাল থেকে যোগাযোগ করা হয় রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরে। এরপর স্বাস্থ্য দপ্তরের আধিকারিকরা এদিন সকাল থেকে এখানে উপস্থিত রয়েছেন এবং গোটা ব্যবস্থা তারা পরিচালনা করছেন নিজস্ব তত্ত্বাবধানে।

মূলত পি. জি. হাসপাতাল ও দমদমে অবস্থিত আই আর এস এল নার্সিংহোমে নিয়ে যাওয়া হবে এবং অজয় দেশাইয়ের অঙ্গ প্রতিস্থাপন হবে এবং গোটা ব্যবস্থাটাই হবে গ্রীন করিডর দিয়েই। তাদের মধ্যে দিয়ে অঙ্গ নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ব্যবসায়ী অজয় দেশাইয়ের ১১ বছরের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে এবং তার স্ত্রীও বিদ্যমান। তারাও এই সিদ্ধান্তে তাদের সহ মত পোষণ করেছেন।

You May Share This
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.