আত্মহত্যার প্ররোচনা দেওয়ায় অভিযুক্তকে কঠোর শাস্তির দাবীতে থানা ঘেরাও,আহত পাঁচ পুলিশ কর্মী, গ্রেফতার ২৪ জন বিক্ষোভকারী

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

 

শান্তনু বিশ্বাস, হাবড়াঃ হাবড়া থানার অন্তরগর্ত ডহরথুবা এলাকার বাসিন্দা রঞ্জিত বিশ্বাস ও রচিতা রায় চার বছর ধরে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে ছিল। এমনকি দুই পরিবারই তাদের ভালোবাসার কথা জানতেন এবং দুই পরিবারের মধ্যে যাতায়াতও ছিল। পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়ায় দুইজনের একসাথে ছবিও রয়েছে। বিয়ের কথা বার্তাও চলছিল দুই পরিবারের মধ্যে। হঠাৎ দুজনের সম্পর্কে ভাঙ্গন। সম্প্রতি রচিতা রায় অপর একটি ছেলের সাথে ভালোবাসার সম্পর্কে জড়িয়ে পরে। আর তারপর থেকেই মানসিক ভাবে বেশ কিছুদিন ধরে ভেঙ্গে পরে রঞ্জিত বিশ্বাস। এর দরুন প্রেমিকার বিয়ে হয়ে যায় তাও সে বিশ্বাস করতে পারেনি। চলতি মাসের ৩রা ডিসেম্বর তারিখ সোমবার রচিতা রায় রঞ্জিতকে সোশ্যাল সাইটে তার বিয়ের ছবি পাঠানোর পর মানসিক ভাবে ভেঙে পরে নিজেকে শেষ করার জন্য কীটনাশক খেয়ে আত্মহত্যা করে বলে অভিযোগ রঞ্জিতের পরিবারের।

যদিও ঘটনার পর সাথে সাথে তাকে হাবড়া হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় কিন্তু তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে আরজিকর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। এরপর ৬ই ডিসেম্বর আরজিকর হাসপাতালে চিকিৎসা চলাকালিন রাত ৮টা নাগাদ রঞ্জিত তার জীবন যুদ্ধে পরাজিত হয়। মূলত তারপরই রঞ্জিতের পরিবারের পক্ষ থেকে গতকাল হাবড়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হলে তদন্ত নেমে আজ রচিতাকে গ্রেফতার করে হাবড়া থানার পুলিশ।

তবে এদিন হঠাৎ বিকালে রঞ্জিতের পরিবার এলাকাবাসী সহ বন্ধু বান্ধব মিলে হাবড়া থানায় ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে অভিযুক্তকে গ্রেফতারের দাবিতে। পুলিশ কর্মীরা তাদের বোঝানো চেষ্টা করে অভিযুক্ত রচিতা রায়কে গ্রেফতার করা হয়েছে। তা সত্ত্বেও বিক্ষোভকারীরা মানতে চায়নি তাদের দাবি, অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে চরম শাস্তির দাবি জানান। এর জেরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বিশাল পুলিশ বাহিনী নামানো হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আহত হয় পাঁচ পুলিশ কর্মী। এর দরুন এদিন ২৪ জন বিক্ষোভকারীদের গ্রেফতার করে হাবড়া থানার পুলিশ।

সম্পর্কিত সংবাদ

Leave a Comment