ভুয়ো ট্রাভেলস এজেন্সি খুলে কয়েক লক্ষ টাকার প্রতারণায় গ্রেফতার ১

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

 

অর্নব মৈত্র, বসিরহাটঃ ১লা ডিসেম্বর বসিরহাট থানার ময়লাখোলা এলাকায় ‘মনের মাঝে ট্রাভেলস এজেন্সি’ খুলে কম পয়সায় ঘুরতে নিয়ে যাওয়ার টোপ দিয়ে কয়েক লক্ষ টাকা প্রতারণার অভিযোগে গ্রেফতার এজেন্সির মালিক ৷ ধৃতের নাম রাকেশ দাস। বাড়ি মাটিয়া থানার রাজনগর এলাকায়। পুলিশ সুত্রে খবর, একাধিক অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয় রাকেশকে । ধৃতকে আজ ১৪ দিনের পুলিশি হেফাজত চেয়ে বসিরহাট মহকুমা আদালতে তোলা হয়।

অভিযোগ, ২৬ শে অক্টোবর থেকে ‘মনের মাঝে ট্রাভেলস এজেন্সি’-র প্রথম ঘুরতে যাওয়া শুরু হয়। প্লেনে আন্দামানে যাওয়ার টিকিট নিয়ে বিমানবন্দরে হাজির হয় যাত্রীরা এবং সেখানে গিয়ে জানতে পারে সমস্ত টিকিট ক্যানসেল করেছে রাকেশ। এরপরই বসিরহাট থানায় রাকেশের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে দিলীপ কুমার হালদার, সাবীর আহমেদ, মনোতোষ ঘোষ, অঞ্জলী মুখার্জী সহ সকল প্রতারিতরা ৷ এমনকি সম্প্রতি ময়লা খোলা অফিসে গিয়ে দেখা যায় অফিস বন্ধ ও সাইনবোর্ড উধাও। পাশাপাশি রাকেশের মোবাইলটিও বন্ধ করে রাখা হয়েছে। ঘটনার পর থেকেই পলাতক রাকেশ ৷

পুলিশ সুত্রে খবর, বসিরহাট থানার ময়লাখোলা এলাকায় ‘মনের মাঝে ট্রাভেলস এজেন্সি’-র নামে ঝাঁ-চকচকে অফিস খোলে রাকেশ। বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় কম পয়সায় ঘুরতে নিয়ে যাওয়ার জন্য আকর্ষণীয় বিজ্ঞাপনও দিয়েছিল বহুবার। আর সেই আকর্ষণীয় বিজ্ঞাপনের চমকে শীতের মরশুমে বা পুজোর ছুটিতে ঘুরতে যাওয়ার জন্য প্রচুর মানুষ রাকেশের সাথে যোগাযোগ করে এবং আন্দামান, পেলিং, রাজস্থান, দার্জিলিং, গ্যাংটক সহ বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে যাওয়ার জন্য অগ্রিম টাকা দিয়ে বুকিংও করেন। এরপর ২৬শে অক্টোবর বিমানবন্দরে হাজির হয়ে যাত্রীরা জানতে পারেন রাকেশ তাদের টিকিট ক্যানসেল করেছে।

এমনকি ঘটনার পর থেকেই পলাতক রাকেশ। তাঁর মোবাইল ফোনটিও বন্ধ রয়েছে। এরপরই সকল যাত্রীরা বসিরহাট থানায় রাকেশের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে। মূলত সেই অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ রাকেশের খোঁজ করতে থাকে ৷ এরপর ১লা ডিসেম্বর রাতে বসিরহাট থানার কলেজপাড়া এলাকায় রাকেশের এক আত্মীয়র বাড়ি থেকে রাকেশকে গ্রেফতার করে বসিরহাট থানার পুলিশ। আজ তাকে ১৪ দিনের পুলিশি হেফাজত চেয়ে বসিরহাট মহকুমা আদালতে তোলা হয়েছে ৷

সম্পর্কিত সংবাদ

Leave a Comment