পুলিশি তৎপরতায় মাত্র তিন সপ্তাহের মধ্যে অপরাধীকে ৩ বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ আদালতের

পুলিশি তৎপরতায় মাত্র তিন সপ্তাহের মধ্যে অপরাধীকে ৩ বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ আদালতের

 

অরিন্দম রায় চৌধুরী, কলকাতাঃ মাথার চুল সব সাদা কিন্তু যা ঘটনা ঘটালেন তপনবাবু তা নিত্যান্তই পাশবিক বলা ছাড়া আর কোন সঠিক কথা খুঁজে পাচ্ছেন না কলকাতার ফুলবাগান এলাকার মানুষেরা। প্রসঙ্গত মাস তিনেক আগে কাটোয়ার বাসিন্দা একটি নাবালিকা মেয়ে, ফুলবাগানের একটি বাড়িতে শিশুকে দেখাশোনা করার কাজে বহাল হয়েছিল। বহাল করেছিলেন ওই বাড়িরই বাসিন্দা তপন ভট্টাচার্য। বয়স সত্তর পেরিয়েছে। বৃদ্ধ ঐ বাড়ীর বাসিন্দা তপন ভট্টাচার্য মেয়েটিকে একা পেয়ে শারীরিকভাবে নিগ্রহ করেন বলে গত ৩১ অক্টোবর ফুলবাগান থানায় একটি অভিযোগ জমা পড়ে। এক নাবালিকা জানায়, একা পেয়ে তাকে শারীরিকভাবে নিগ্রহ করেছেন তপন ভট্টাচার্য নামের এক প্রৌঢ় ব্যক্তি।

মেয়েটি যেহেতু নাবালিকা তাই সোজাসুজি অভিযোগের ভিত্তিতে একটি পকসো (Protection of Children from Sexual Offences Act) আইনে মামলা রুজু হয়। তদন্তকারী অফিসার সাব ইনস্পেকট্রেস বর্ণা ঘোষালের নেতৃত্বে ফুলবাগান থানার বিশেষ টিম তপন ভট্টাচার্যকে গ্রেপ্তারও করেন। মাত্র ১৩ দিনের মধ্যে বর্না দেবী প্রয়োজনীয় সাক্ষ্যপ্রমাণ-সমেত চার্জশিট জমা দেওয়া হয় যুদ্ধকালীন তৎপরতায়।

খুব অল্প দিনেই সেই মামলারই রায় বের হয় গত ২২ নভেম্বর। তপন ভট্টাচার্যের ৩ বছরের কারাদণ্ড ও ২০,০০০ টাকার জরিমানার নির্দেশ দিয়েছেন মাননীয় বিচারক। জরিমানা অনাদায়ে কারাদণ্ডের মেয়াদ আরও ৩ মাস বাড়বে। দেখার বিষয় মাত্র ২২ দিনের মধ্যেই অক্লান্ত পরিশ্রমে অপরাধের শাস্তি নিশ্চিত করেছেন এই ঘটনার তদন্তকারী অফিসার, সাব ইনস্পেকট্রেস বর্ণা ঘোষাল। শুধু এই টুকু বলা – সাবাশ বর্ণা।

You May Share This
  • 24
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    24
    Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *