ফের চূড়ান্ত সাফল্য লাভ করল বাঙালি চিকিৎসকরা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ওয়েবডেস্ক, বেঙ্গল টুডে:

জটিল অস্ত্রোপচার করে রোগীর প্রাণ বাঁচল ফের মালদা মেডিক্যাল কলেজে। মূলত খাবার সময়ে এক যুবকের শ্বাসনালীতে আটকে যায় প্রায় দুই ইঞ্চির মাংসের হাড়। হাড়ের দুই দিকই ধারালো হওয়ায় দেখা দেয় প্রাণসংশয়। এরপর তাকে মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভর্তি করা হয়। যুবকের নাম সাদ্দাম হোসেন। বাড়ি কালিয়াচকের পঞ্চানন্দপুর পঞ্চায়েতের বনকুল গ্রামে। পেশায় গাড়ি চালক সাদ্দাম হোসেন।

সুত্রের খবর, ২৭ শে জানুয়ারি রাতে বাড়িতে খাবার খাওয়ার সময় অন্যমনস্কতায় ভাতের সঙ্গে মাংসের হাড়ও গিলে ফেলেন সাদ্দাম হোসেন । এরপরই শুরু হয় চরম শ্বাসকষ্ট। এর দরুন প্রথমে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় বাঙ্গিটোলা গ্রামীণ হাসপাতালে। সেখান থেকে আবার তড়িঘড়ি স্থানান্তরেত করা হয় মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।

হাসপাতাল সুত্রে খবর, ইএনটি বিশেষজ্ঞ মহম্মদ আবদুল রশিদের নেতৃত্বে ২৯ শে জানুয়ারি এই অস্ত্রোপচার সফল হল মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। কারন সাদ্দামের শ্বাসনালীতে যেভাবে ধারালো হাড় আটকে গিয়েছিল, তাতে শ্বাসনালী ফুটো হয়ে যাওয়ার প্রবল সম্ভবনা তৈরী হয়। শুধু তাই নয়, খাদ্যনালীতেও ক্ষতির আশঙ্কা করছিলেন চিকিৎসকরা। তবে ল্যারিংগোস্কোপির সাহায্যে ৪ সদস্যের মেডিক্যাল টিম জটিল অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে গলায় আটকে থাকা হাড় বের করতে সক্ষম হন। বর্তমানে সুস্থ রয়েছেন সাদ্দাম হোসেন।

প্রসঙ্গগত এর আগে কালিয়াচকে দুই শিশুর গলায় সফল অস্ত্রপ্রচার করে গলায় আটকানো লকেট ও কই মাছ বের করে আনেন চিকিৎসকেরা। এবার ফের সফল অস্ত্রোপচারে রোগীদের আস্থা আরও বাড়বে বলে আশা কর্তৃপক্ষের। তবে একই সঙ্গে খাবার সময়ে সাবধানতা অবলম্বন করার বার্তাও দিয়েছেন চিকিৎসকেরা।

সম্পর্কিত সংবাদ