লক্ষী পূজোর পরের দিন মা লক্ষী দেবী কে মারধর করলো গূনধর পুএ

Spread the love
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    7
    Shares

 

শান্তনু বিশ্বাস, অশোকনগরঃ বারবার খবরের শিরোনামে উঠে আসছে পিতা-মাতাকে সন্তানের অত্যাচারের খবর, ৪৮ ঘন্টা পার হতে না হতেই ফের অশোকনগরে মদ্যপ ছেলের হাতে লোহার রডের আঘাতে রক্তাক্ত হল ৬৫ বছরের বৃদ্ধা মা। বৃদ্ধার নাম লক্ষ্মী রাণী মিত্র, পরে ছেলেকে উত্তেজিত জনতা আটকে রেখে তুলে দেয় পুলিশের হাতে। প্রঙ্গত, গত ২০শে অক্টোবর স্বামী তার স্ত্রীকে বাজার থেকে সন্দেশ খাওয়ানোর অপরাধে গুনধর ছেলে বাবাকে মারধর করে, আর সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি আবার অশোকনগরে।

পরিবার সুত্রে জানা যায়, পেশায় গাড়ি চালক শিবশঙ্কর মিত্র রোজই মদ্যপান করে ঘরে এসে পরিবারের লোকজনকে মারধর করতো, এমনকি তার মাকেও মারতো বলে অভিযোগ। ২৫শে অক্টোবর, বৃহস্পতিবার রাত প্রায় ১০:৩০ নাগাদ বাড়িতে এসে মায়ের কাছে ভাত খেতে চাইলে জল দেওয়া ভাত দেওয়াতে রেগে গিয়ে লক্ষ্মী রানী দেবী কে ছেলে মদ্যপ অবস্থায় লোহার রড দিয়ে আঘাত করে। শুধু রড নয়, কিল, চড়, ঘুষির থেকেও রেহাই পাননি বৃদ্ধা। মার খওয়ার ফলে হাত থেকে রক্ত বেরোতে থাকে বৃদ্ধার। নিজেকে বাঁচাতে চিৎকার করতে থাকলে তার গলাও চেপে ধরে বলে অভিযোগ।

চিৎকার শুনে স্থানীয় বাসিন্দারা আসলে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়, পরে মদ্যপ শিবশঙ্কর-কে আটক করে অশোকনগর থানায় হাতে তুলে দেওয়া হয়। আহত বৃদ্ধাকে চিকিৎসার জন্য অশোকনগর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ। অভিযুক্ত শিব শঙ্করের দুই মেয়ে। এক মেয়ে একাদশ শ্রেনীতে পড়াশোনা করে এবং ছোটমেয়ে সপ্তম শ্রেণীতে পড়াশোনা করে। স্ত্রী মারা গেছে ২ মাস আগে। মা এবং মেয়েদের অত্যাচার করে বলে রোজ রাতে হাবড়া থেকে অভিযুক্তের শ্বাশুরি প্রতিমা হালদার এসে নাতনিদের সাথে থাকে। ঘটনার ফলে এদিন রাতে এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পরে। ঘটনাস্থলে এসে পৌছয় অশোকনগর থানার পুলিশ। মদ্যপ ছেলেকে আটক করলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। পরিবার থেকে থানায় কোন অভিযোগ না হওয়ায়, মদপান করার অভিযোগে গ্রেফতার করে পুলিশ।আজ বারাসত আদালতে পাঠানো হলে জামিনে ছাড়া পেয়ে যায়।

সম্পর্কিত সংবাদ

Leave a Comment