এবার দেড় গুন দ্রুত গতিতে ছুটবে রাজধানী এক্সপ্রেস

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

 

ওয়েব ডেস্ক, বেঙ্গল টুডেঃ  ভারতীয় রেলের অভিজাত ট্রেনগুলির গতি আরও বাড়াতে সচেষ্ট রেল মন্ত্রক। একদিকে যেমন বুলেট ট্রেনের স্বপ্ন দেখা শুরু হয়েছে, তার পাশাপাশি রাজধানী, শতাব্দীর মতো ট্রেনগুলির গতি আরও বাড়ানোর উপরে জোর দেওয়া হচ্ছে। নিয়ে আসা হয়েছে ঘণ্টায় ১৬০ কিলোমিটার গতিতে চলতে সক্ষম গতিমান এক্সপ্রেসও। এরই মধ্যেই ভারতীয় রেলকে নতুন উপহার দিল বাংলার চিত্তরঞ্জন লোকোমোটিভ ওয়ার্কস।

২৪শে অক্টোবর চিত্তরঞ্জন লোকোমোটিভ ওয়ার্কস এই কারখানা থেকেই বেরোল ভারতের প্রথম রেল ইঞ্জিন, যা ঘণ্টায় ২০০ কিলোমিটার গতিতে চলতে সক্ষম। দেশের মধ্যে এই ধরনের ইঞ্জিন প্রথম তৈরি হল। এই উচ্চগতি সম্পন্ন ইঞ্জিন দিয়েই ভবিষ্যতে রাজধানী, শতাব্দী, গতিমানের মতো ট্রেনগুলি চালানো হবে বলে জানিয়েছে রেল মন্ত্রক। ওয়্যাপ ফাইভ গোত্রের এই ইলেক্ট্রিক ইঞ্জিনটি অ্যারোডাইনামিক এবং এরগোনোমিক নকশায় তৈরি। এর ফলে এই ইঞ্জিন যেমন উচ্চগতি সম্পন্ন, তেমনই বিদ্যুতও সাশ্রয় করবে।

এছাড়াও এই ইঞ্জিনে ট্রেন চালক ও কর্মীদের জন্য ভয়েস এবং ভিডিও রেকর্ডিং সিস্টেম রয়েছে। এর ফলে ইঞ্জিনের ভিতরে কী কী ঘটছে, তার সমস্ত তথ্য ভবিষ্যতে পর্যালোচনার জন্য তোলা থাকবে। কোনও ধরনের বিপত্তি বা দুর্ঘটনা ঘটলে পরবর্তী সময়ে এই তথ্য পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্তে পৌঁছনো সহজ হবে।

একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, বর্তমানে রাজধানী এক্সপ্রেস ওয়াপ সেভেন প্রযুক্তির ইঞ্জিনের সাহায্যে চালানো হয়। যার সর্বোচ্চ গতি ঘণ্টায় ১৩০ কিলোমিটার। শতাব্দীর গতিও থাকে ১৩০ থেকে ১৪০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টার মধ্যে। তবে শুধু ইঞ্জিন বা গতিশীল ট্রেন তৈরি করলেই হবে না। ঘণ্টায় ২০০ কিলোমিটারের মতো উচ্চ গতিতে ট্রেন চালানোর জন্য প্রয়োজন উপযুক্ত রেল লাইন। আপাতত সেদিকেও জোর দিচ্ছে রেল মন্ত্রক।

সম্পর্কিত সংবাদ

Leave a Comment