বাবা মায়ের স্বপ্ন ধূলিসাৎ, মানালি থেকে নিথর দেহ ফিরছে বিশ্বজিতের

Spread the love
  • 23
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    23
    Shares

 

জয় চক্রবর্তী, গাইঘাটাঃ  মানালিতে বেড়াতে গিয়ে ২১ শে অক্টোবর রবিবার সকালে পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয় গাইঘাটার ডেওপুলের বাসিন্দা দীনবন্ধু দাস ও রেখা দাসের একমাত্র ছেলে বিশ্বজিৎ দাসের (২৭)। এদিন বিকালে সেই খবর এলাকায় পৌছাতেই এলাকার মানুষ শোকস্তব্ধ হয়ে গিয়েছে। বিশ্বজিৎ-এর বাবা মায়ের স্বপ্ন ছিল ফাল্গুন, বৈশাখে একমাত্র ছেলের বিয়ে দিয়ে ঘরে বৌমা নিয়ে আসবেন। কিন্তু তাদের সেই স্বপ্ন অধরাই থেকে গেল।

দীনবন্ধুবাবুর দুই ছেলে-মেয়ে। তিনি চাষের কাজ করেন। বড় মেয়ে টুম্পার বিয়ে দিয়েছেন। ছেলে বিশ্বজিৎ কয়েক বছর আগে চাকরি পাওয়ার পর পরিবারের আর্থিক সঙ্গতি ফেরে। হাওড়ার একটি বেসরকারি সংস্থায় কর্মরত ছিল সে। ষষ্টির দিন বিশ্বজিৎ বাড়ি থেকে রওনা দিয়েছিলেন মানালির উদ্দেশ্যে। মধ্যমগ্রাম, বারাসাতের মহিলা ও পুরুষ বন্ধুরা তার সঙ্গে ছিলেন। দুর্ঘটনায় তারাও জখম হয়েছেন।

ছোটবেলা থেকে দারিদ্রতার সঙ্গে লড়াই করে বড় হয়েছে বিশ্বজিৎ। চাকরি পাওয়ার আগে এলাকায় খেলাধুলায় যথেষ্ট সুনাম ছিল তাঁর । ভদ্র শান্ত স্বভাবের জন্য তাঁকে সবাই পছন্দও করতেন। সপ্তাহ শেষে বাড়িতে ফিরে গ্রামের লোকজনদের খবর নিতেন। বিশ্বজতের বন্ধু তাপস বিশ্বাস বলেন দারিদ্র্যতার সঙ্গে লড়াই করে যখন নিজের পায়ে একটু একটু করে দাড়াচ্ছিল তখন এভাবে বন্ধুর চলে যাওয়াটা মেনে নিতে পারছেন না। এদিন মৃত্যুর খবর আসার পর ভেঙে পড়েছেন দীনবন্ধু বাবু। তিনি বলেন ছেলের জন্য মেয়ে দেখা হচ্ছিল। আগামি ফাল্গুন-বৈশাখে ছেলের বিয়ে দিয়ে ঘরে লক্ষ্মী আনতাম, কিন্তু তার আগেই সব শেষ হয়ে গেল। পরিবারের সদস্যরা মানালির উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন বিশ্বজিতের দেহ অনতে। ইতিমধ্যে গোটা গ্রাম ঘরের ছেলের ফিরে আসার অপেক্ষায় রয়েছে।

সম্পর্কিত সংবাদ

Leave a Comment