চিকিৎসার গাফিলতিতে রোগীর মৃত্যু, হাসপাতালে উত্তেজনা

চিকিৎসার গাফিলতিতে রোগীর মৃত্যু, হাসপাতালে উত্তেজনা

জয় চক্রবর্তী, বনগাঁঃ চিকিৎসার গাফিলতিতে এক ব্যাক্তির মৃত্যুর অভিযোগ উঠল নার্স ও আয়ার বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগণার বনগাঁ মহকুমা হাসপাতলে। অভিযুক্ত ওই নার্স ও আয়ার বিরুদ্ধে বনগাঁ মহকুমা হাসপাতাল সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন মৃত ব্যাক্তির মেয়ে বাবলি বিশ্বাস। মৃত ব্যাক্তির নাম বীরেশ্বর বিশ্বাস (৭০)। অভিযোগ, শনিবার রাত ১১ টা নাগাদ শ্বাস কষ্টজনিত কারনে বীরেশ্বর বাবুকে বনগাঁ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। চিকিৎসার পর তিনি অনেকটাই সুস্থ হয়ে ওঠেন বলে পরিবারের দাবি।

মেয়ে বাবলি বিশ্বাস বলেন সোমবার সকালে হাসপাতালে গিয়ে তিনি দেখেন, “বাবার স্যালাইন, অক্সিজেন খোলা অবস্থায় বেডের এক পাশে পড়ে আছে। মুখ থেকে গ্যাজা বেরচ্ছে। নার্সকে ঘটনার কথা বলতে গেলে আমাকে ওয়ার্ড থেকে বের করে দেয়। পরে হাসপাতালের সুপারের কাছে লিখিত জমা দিয়ে ওয়ার্ডে ঢুকতে দেয়। তখনও স্যালাইন ও অক্সিজেন খোলা অবস্থায় পড়ে ছিল। বাবার অবস্থা খারাপ বুঝে নার্স ও আয়াদের পায়ে ধরে কান্নাকাটি করলে তবেই ফের তাঁরা অক্সিজেন ও স্যালাইনের ব্যবস্থা করেন। খালি অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে রাখা হয়েছিল বাবাকে, আমরা দেখে নার্সকে বলতেই দ্রুত নতুন সিলিন্ডারের ব্যবস্থা হয়। ততক্ষণে বাবার অবস্থা আরও আশংকাজনক হয়ে ওঠে৷ বারবার ডাক্তারকে ডাকতে বললেও ডাক্তার ডাকেনি কর্তব্যরত নার্স। ফের চিৎকার চেঁচামেচি করলে চিকিৎসককে ডাকা হয়। চিকিৎসক রোগী দেখেই বলেন অবস্থা ভাল না। এই রোগীকে এখনই এইচ ডি ইউ তে পাঠাতে হবে। তারপরও নানা অজুহাত দেখিয়ে রোগীকে এইচ ডি ইউতে নিয়ে যেতে দেরি করে। ফলে বেডেই তার মৃত্যু হয়”।

ঘটনার পর হাসপাতালে উত্তেজনা শুরু হয়। রাতে লিখিত অভিযোগ করা হয়৷ বনগাঁ মহকুমা হাসপাতালের সুপার শঙ্কর প্রসাদ মাহাতো জানান বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷

You May Share This

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.