সক্রিয় হাওড়া পৌরসভা, অবশেষে মঙ্গলা হাট ও বাসের পার্কিং অনত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করলো হাওড়া পুরসভা

Spread the love
  • 21
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    21
    Shares

রাজীব মুখার্জী, হাওড়া ময়দানঃ আমরা বেঙ্গলটুডের মাধ্যমে হাওড়া ময়দানের মঙ্গলা হাট কে কেন্দ্র করে ও বঙ্কিম সেতুর উপরে অবৈধ বাসের পার্কিং সংক্রান্ত দুটি প্রতিবেদন নিয়ে এসেছিলাম আপনাদের কাছে। তার পরবর্তী সময় আমরা জানলাম পুরসভার তরফে হাওড়া ময়দান এলাকা থেকে হাট সরিয়ে ফেলতে রাজ্য সরকারের কাছে আবেদন জানাতে চলেছে হাওড়া পুরসভা নতুন করে ২০১৬ সালের পরে। প্রসঙ্গত ২০১৬ সালের মে মাসে যে ৩ সদস্যের কমিটি তৈরি হয়েছিল এই রিপোর্ট জমা দেওয়ার জন্য। তার প্রায় দুই বছরের পরে হাওড়া পৌরসভা সেই তাগিদ অনুভব করলো আবার। সেই সঙ্গে হাওড়া হাটের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে রাজ্য সরকারের কাছে আলাদা করে রিপোর্ট দেবে হাওড়া জেলা প্রশাসন ও হাওড়া সিটি পুলিশ। হাওড়া পুরসভার উদ্যোগে হাট গুলি ঘুরে দেখেন মেয়র রথীন চক্রবর্তী, পুর-কমিশনার বিজিন কৃষ্ণ, জেলা শাসক চৈতালি চক্রবর্তী, পুলিশ কমিশনার তন্ময় রায় চৌধুরী এব‌ং সিই এস সি-র প্রতিনিধিরা।

হাওড়া পুরসভা সূত্রে খবর, মেয়রের নেতৃত্বে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের শীর্ষ কর্তাদের দলটি মঙ্গলাহাট সহ বিভিন্ন হাট ঘুরে দেখবে। কথা বলবেন হাটের ব্যবসায়ীদের সঙ্গেও। এই বিষয় মেয়র রথীন চক্রবর্তী বলেন, “যে ভাবে হাট চলছে, তা জতু গৃহ ছাড়া কিছু নয়। তাই রাজ্য সরকারের কাছে আমরা আলাদা করে সমীক্ষা-রিপোর্ট জমা দেব, মেট্রো চালু হওয়ার আগে। হাট অন্যত্র সরানোর জন্য দ্রুত কী ব্যবস্থা নেওয়া যায়, রাজ্য সরকারকে তা দেখতে বলব। কারণ এইটা ভীষন জরুরি এই মুহূর্তে।” মেয়র আরও বলেন, “মেট্রো চালু হলে তখন হাট ও মেট্রোর মিলিত ভিড় সামলানো কঠিন হবে। কারণ সে সময়ে প্রতিদিন গড়ে আড়াই লক্ষ লোক হাওড়া ময়দানে আসবে। তাই মেট্রোর সঙ্গে বৈঠকে ট্র্যাফিক নিয়ন্ত্রণ নিয়ে একটি নকশা তৈরির পাশাপাশি হাওড়া ময়দানে বসা দোকানিদের কী করা হবে, তা নিয়েও আলোচনা শুরু করা হচ্ছে। পাশাপাশি, শহরে পার্কিং কোথায় করা হবে, তা নিয়েও পুলিশের সঙ্গে কথা হয়েছে এ দিন”।

আপাতত বঙ্কিম সেতুর উপরে বাসের পার্কিং সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। কোনো বাস দাঁড়াচ্ছে না সেতুর উপরে। এখন স্থানীয়রাও চায় এভাবেই জন সাধারণের এই হাট কে কেন্দ্র করে নিত্যদিনের যানজট, দুর্ভোগ আর ভয় কাটানোর অভয় দিয়ে খানিকটা স্বস্তির নিঃস্বাস দেওয়ার দায়িত্ব টা মেয়রের নেতৃত্বে হাওড়া পুরসভা নিক, তার পাশে থাকুক পুলিশ ও প্রশাসন।

অপরদিকে, সাঁতরাগাছি আন্ডারপাসে যে জল জমার চিত্র ছিল, তারও প্রতি সজাগ দৃষ্টি দেওয়া শুরু হয়েছে আজকে থেকে। অঞ্চলের বাসিন্দারা এতে বেশ খুশি। যে সমস্ত দোকানিরা আছেন এখানে, তারা এই উদ্যোগ কে সাধুবাদ জানালেন। হাওড়া কর্পোরেশনের গাড়ি দাঁড়িয়ে ড্রেন পরিষ্কার করার কাজ শুরু হয় এদিন। তাদের সাথে কথা বলে জানা গেলো, প্রতি মাসে দু বার করে এই দেখা শোনার কাজ চলবে এবার থেকে।

সম্পর্কিত সংবাদ