প্রেমিক-প্রেমিকা ভিন্ন ধর্মের হওযায় মেনে নেয়নি পরিবার, আত্মঘাতি নাবালিকা, গ্রেফতার প্রেমিক

Spread the love
  • 22
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    22
    Shares

 

শান্তনু বিশ্বাস, গোবরডাঙ্গাঃ ২৬শে সেপ্টেম্বর বিকাল ৪টে নাগাদ মেয়ে কে ডাকলে ঘরের দরজা না খোলায় সন্দেহ হয় পরিবারের। ঘরের টিন ভেঙ্গে দেখা যায় মেয়ে মায়ের শাড়ি কে ফাঁস হিসাবে ব্যাবহার করে ঝুলছে। সঙ্গে সঙ্গে গোবরডাঙ্গার একটি বেসরকারি নাসিংহোমে নিয়ে যাওয়া হলে অবস্থার অবনতি হয়। পরে হাবড়া হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করে তরুণীকে। জানাগিয়েছে, প্রিতীলতা গালর্স হাইস্কুলের দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রী বছর সাতেরোর মাম্পি দত্তর বেশ কিছু দিন ধরে প্রেমিকের সাথে গোন্ডোগোল চলছিলো। তাদের ভিন্ন ধর্ম হওযায় দুই পরিবার থেকে মেনে নিতে নারাজ হওয়ায় বেশ কিছু দিন ধরে টানা পরেন চলছিল তাদের মধ্যে। এর ভিতরে মেয়েটি ছেলেটিকে চাপ দিচ্ছিলো বিয়ের জন‍্য। মেয়েটি নাবালিকা হওয়ায় তার প্রেমিক বিয়ে করতে অস্বীকার করে তাকে। মেয়েটির বাবা বিষু দও জানান, “আমার মেয়েকে আত্মহত্যা করার প্ররোচনা দেওয়া হয়। হাবড়া থানায় অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নেমে গাইঘাটা থানার অন্তরগর্ত জামদানি বটতলা এলাকা থেকে ২৬শে সেপ্টেম্বর রাতেই পুলিশ গোবরডাঙ্গা হিন্দু কলেজর তৃতীয় বর্ষের ছাত্র বছর ছাব্বিশের সেলিম মন্ডল কে গ্রেফতার করে। প্রেমিক সেলিম মন্ডলের বক্তব্য, “১৮ বছরের আগে বিয়ে করা অপরাধ। তার জন্য বিয়ে করতে রাজি হয়নি, ও যে এমন কাজটি করবে ভাবতে পারেনি।” আজ, ২৭শে সেপ্টেম্বর তাকে বারাসাত আদালতে পাঠানো হয়।

সম্পর্কিত সংবাদ