পেটের তাগিদে গাছে উঠে বিদ‍্যুৎস্পৃষ্ঠ হয়ে মৃত্যু, আঙ্গুল উঠেছে ইলেকট্রিক সিটি বোর্ডের দিকে

Spread the love
  • 27
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    27
    Shares

অমিয় দে, দক্ষিন ২৪ পরগনাঃ রোজকারের মতো ২৪শে সেপ্টেম্বর সোমবারও পেটের তাগিদে সকাল সকাল বাড়ি থেকে বেরোয় অশোক ঘড়ই নামে এক ব‍্যাক্তি রোজগারের জন্য। কিন্তু তার আর জলজ্যান্ত বাড়ি ফেরা হল না। হত দরিদ্র খেটে খাওয়া পরিবারের মানুষ গুলো একদিন কাজে না বেড়োলে যে পরিবারের সদস্যদের না খেয়ে কাটাতে হবে সারাদিন। আর নারকেল গাছে উঠে এভাবে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে যে মৃত্যুর কলে ধলে পড়তে হবে তাকে, তা কেউ ভাবতেও পারেননি পরিবারের সদস্যরা। কিন্তু তার কাজতো করতেই হবে, গাছ থেকে নারকেল, ডাব, বিক্রি করে উপার্জন করাই হলো তার পেশা। কিন্তু এদিন সকালে মৈপিঠ কোস্টাল থানার পূর্ব দেবীপুরের একটি এলাকায় নারকেল গাছে উঠে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হল অশোক ঘড়ই (৪২) নামে ওই ব‍্যাক্তির।

স্থানীয় সূত্রে খবর, ২৪শে সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ৬টা নাগাদ গাছে উঠে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে গাছেই ঝুলে পরেন সে। ওই দৃশ্য দেখে হতভম্ব হয়ে যায় গ্রামের সমস্ত মানুষ। এরপরেই খবর দেওয়া হয়, মৈপিঠ কোস্টাল থানায়। পুলিশ আসার পরেই সেই দেহ নামানো হয়। অন্যদিকে গ্রামবাসীদের বক্তব্য, গ্রামের মধ্যে দিয়ে ১১০০০ ভোল্টের বিদ্যুতের তাঁর যাওয়ায় ক্ষুব্ধ গ্রামবাসীরা, দেহ আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে এলাকার বাসিন্দারা। পরে পথ অবরোধ ও করেন তারা। তাদের দাবি, বিদ্যুৎ দপ্তর বেআইনি ভাবে গ্রামের মধ্যে দিয়ে ১১০০০ ভোল্টের বিদ্যুৎতের তার নিয়েগেছে। এর কারণেই দুর্ঘটনা। প্রশাসনের হস্তক্ষেপ এবং নিহতের জন্য ক্ষতিপূরণের দাবি করেন তাঁরা। আর গ্রামের ভিতর দিয়ে যে ১১০০০ ভোল্টের লাইন লাগানো হয়েছে তা অবিলম্বে সরানো হোক অন‍্যথায়, এটাই তাদের দাবি।

সম্পর্কিত সংবাদ