সাবধান!! এবার ব্যারাকপুরে জনস্থলে ধূমপান করলে জরিমানা

Share Bengal Today's News
  • 40
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    40
    Shares

 

অরিন্দম রায় চৌধুরী, ব্যারাকপুরঃ জেনে রাখা ভাল যে গ্যাটস-২(GATS-2)-এর তথ্য অনুযায়ী পশ্চিমবঙ্গে প্রাপ্ত বয়স্কদের মধ্যে ৩৩.৫% যা মোট জনসংখ্যার প্রায় ২.৩ কোটি, কোনও না কোনও উপায়ে তামাক ব্যবহার করে এবং ১.৫ লক্ষ লোক প্রতিবছর এর কারণে মারা যায়। দেখা গেছে যে ৪২ টিরও বেশি শিশু প্রতিদিন পশ্চিমবঙ্গে তামাক খাওয়া শুরু করে।

অপরদিকে ২০০৩ সালে সিগারেট এবং অন্যান্য তামাকজাত দ্রব্য আইন (COTPA 2003) জনস্থানে ধূমপান, প্রত্যক্ষ/পরোক্ষ বিজ্ঞাপন এবং প্রচার, ১৮ বছরের কম বয়সীদের কাছে/দ্বারা বিক্রয়, স্কুলের ১০০ গজের মধ্যে বিক্রয় এবং বিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ ছাড়া তামাকজাত পণ্যের বিক্রয় নিষিদ্ধ করে।

এবার যুবকদের মধ্যে তামাকের ব্যবহার প্রতিরোধে ও তামাক মুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে ১৮ই জুলাই ব্যারাকপুর পুলিশ লাইন থেকে এক পতাকা নেড়ে ওয়াকাথনের শুভ সূচনা করেন ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার ডাঃ রাজেশ কুমার সিং। এই ওয়াকাথনের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের মধ্যে এই নিয়ম গুলি জানানোই ছিল প্রধান উদ্দেশ্য। এছাড়াও তামাক ছাড়ার জন্য স্কুলের কর্মচারীদের / পিতামাতা / বন্ধুদেরকে অনুপ্রাণিত করাও ছিল আরও একটি উদ্দেশ্য।


এইদিন এই ওয়াকাথন শুরু হয় ব্যারাকপুর পুলিশ লাইন থেকে ও শেষ হয়ে ব্যারাকপুর সুকান্ত সদনে গিয়ে। সুকান্ত সদনে একটি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পুলিশ কমিশনার ডঃ সিং সমাবেশে বক্তব্য রাখেন এবং স্কুলগুলোতে কোটপার মান্যতা নিশ্চিত করার জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের প্রশংসা করেন। তিনি শিশুদেরকে তামাকের মারাত্মক প্রভাব সম্পর্কে জানানোরও চেষ্টা করেন। তিনি বলেন যে, ব্যারাকপুর পুলিশ জনস্থান গুলিতে ধূমপায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণে সহায়তা করবে, বিশেষ করে যারা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির ১০০ গজের মধ্যে তামাকজাত দ্রব্য বিক্রি করবে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ভাবে ব্যাবস্থা গ্রহণ করবে।


ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনার ডাঃ রাজেশ কুমার সিং আরও বলেন, “ধোঁয়া যুক্ত ও ধোঁয়া বিহীন, দুই ধরনের তামাকের ব্যবহারই শিশুদের মধ্যে শুরু হচ্ছে যা তাদের মুখের ক্যান্সার এবং অন্যান্য অসুস্থতার দিকে ঠেলে দিচ্ছে। ব্যারাকপুর পুলিশ এবার থেকে কঠোরভাবে কোটপা-২০০৩ আইন প্রয়োগ করে যুবকদের জন্য একটি সম্পূর্ণ তামাকমুক্ত পৃথিবী নিশ্চিত করার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। জনস্থানে ধূমপানের জন্য, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির ১০০ গজের মধ্যে এবং নাবালকদের মধ্যে তামাকজাত দ্রব্য বিক্রি করা হলে অপরাধীদের বিরুদ্ধে সেই মুহূর্তেই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এই প্রচারাভিযানের শুরু করে, আমরা শিশুদেরকে তামাকের আসক্তি থেকে দূরে রাখার চেষ্টা করছি।”

সুকান্ত সদনে এইদিন নারায়ণ সুপারসপেসিটিসিটি হাসপাতাল ও হাওড়া এবং প্যাট্রন অফ ভয়েস অফ টোবাকো ভিক্টিমস প্রচারাভিযানের সিনিয়র অনকোলজিস্ট ডঃ সৌরভ দত্ত বলেন, “নারায়ণা হেলথ পশ্চিমবঙ্গের যুবকদের তামাকের থেকে বাঁচাতে উৎসর্গীকৃত। তিনি আরো যোগ করেন যে, আমার রোগীদের বেশিরভাগেরই মুখের ক্যান্সারের জন্য অপারেশন করতে হয়েছে এবং এর ফলে তারা মানসিকভাবে ভয়াবহ আতঙ্কগ্রস্ত ও আর্থিকভাবে প্রায় ধ্বংস হয়ে গেছে, তাদের জীবনের প্রায় ৫০% এর কারণে তারা হারিয়েছে। তারা এখন তামাক সেবন কেন শুরু করেছিল তা ভেবে হা-হুতাশ করে। প্রতিবন্ধকতা নিরাময়ের চেয়ে ভাল – তাই আমরা সকল স্টেকহোল্ডারদের একসঙ্গে তামাকের বিরুদ্ধে বলতে নিয়ে আসার জন্য ব্যারাকপুর পুলিশদের এই চমৎকার উদ্যোগকে প্রশংসা করি।”

এই প্রসঙ্গে তামাক নিয়ন্ত্রনের প্রধান সঞ্জয় শেঠ বলেন, “ব্যারাকপুর পুলিশের এই উদ্যোগ প্রশংসনীয় এবং আমাদেরকেও সমাজকে স্বাস্থ্যকর করার জন্য আমাদের সবাইকে একত্রিত করতে হবে। পুলিশের দ্বারা কোটপা আইনের বাস্তবায়ন আমাদের ভবিষ্যতের প্রজন্মকে মারাত্মক তামাকজাত দ্রব্যগুলির শিকারে পরিণত হওয়া থেকে আটকাবে।”

এই দিন এই উপলক্ষে তামাক বিরোধী পোষ্টার প্রতিযোগিতায় জয়ী ২0 জন শিক্ষার্থীকে সম্মানিত করা হয়। মঞ্চে সকল সম্মাননীয় অংশগ্রহনকারীরা তামাকবিরোধী পৃথিবী গড়ে তোলার জন্য অঙ্গীকার নেন।

সম্পর্কিত সংবাদ