ত্রিকোন প্রেমের জেরে দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রীকে এলোপাথারি কোপালো আর এক প্রেমিকা

Spread the love
  • 15
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    15
    Shares

 

শান্তনু বিশ্বাস,হাবড়াঃ একটু অন্য রকম ভালোবাসার সাক্ষী থাকল হাবড়া শহরবাসী। এবার ঘটনাটি হাবড়া থানার বানীপুর রবীন্দ্রসরনী এলাকার। স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, হাবড়া থানার অন্তর্গত বানিপুর বাদাম তলা এলাকার বছর ১৭-র ক্ষিতিশ রায় নামে এক যুবকের সঙ্গে ভালোবাসার সম্পর্ক ছিল অশোকনগর, সুভাষ পল্লীর বাসিন্দা অঙ্কিতা কুন্ডুর। সম্রতি দুজনের সম্পর্কে ছেদ পরে বলে জানা যায়। এরই মধ্যে ক্ষিতিশ বানিপুর এলাকার দ্বাদশ শ্রেনীর এক ছাত্রীর সঙ্গে নতুন ভাবে ভালোবাসার সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। আর সেই সম্পর্কই মেনে নিতে পারেনি অঙ্কিতা।

অভিযোগ গতকাল অর্থাৎ ২০শে জুন, বুধবার বিকেলবেলা প্রথমে অঙ্কিতা ও বর্ষার সাথে কথা কাটাকাটি হয়। পরে রাত আটটা নাগাদ ফের অঙ্কিতা বর্ষার বাড়িতে যায়। বাড়িতে তখন কেউ না থাকার সুযোগে, অঙ্কিতা ও বর্ষার মধ্যে ফের বচসা শুরু হয়। কিন্তু এবার অঙ্কিতা তৈরি হয়েই এসেছিল, বর্ষাকে একা পেয়ে এলো পাথারি কুপিয়ে খুনের চেষ্টা করে বলে পুলিশ সুত্রে খবর। বর্ষার চিৎকারে এলাকার লোকজন জড়ো হতেই পালিয়ে অঙ্কিতা যাওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু তাকে ধরে ফেলে এলাকার লোকজন এবং আহত অবস্থায় বর্ষাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। আহত বর্ষার শরিরে ও মাথায় মোট ১৪টি সেলাই পরেছে। আক্রান্ত দ্বাদশ শ্রেনীর পড়ুয়া হাবড়ার প্রফুল্লনগর বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রী বর্তমানে আহত অবস্থায় চিকিৎসাধীন হাবড়া হাসপাতালে। গ্রেপ্তার করা হয়ে অভিযুক্ত যুবতী অঙ্কিতা কুন্ডুকে। উদ্ধার হয় ধারালো দা। এই ঘটনায় গতকাল রাতে এলাকায় চাঞ্চল্যর সৃষ্টি হয়। অভিযুক্ত অঙ্কিতাকে বৃহস্পতিবার বারাসাত আদালতে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার তদন্তে নেমেছে হাবড়া থানার পুলিশ ।

সম্পর্কিত সংবাদ

Leave a Comment