সাপের সঙ্গে সেলফি! বেকায়দায় ফরেস্ট রেঞ্জার

সাপের সঙ্গে সেলফি! বেকায়দায় ফরেস্ট রেঞ্জার

 

ওয়েবডেস্ক, বেঙ্গালটুডেঃ সকলেই জানে সাপ এমনই এক জীব, যা চরম সাহসীকেও বিপদে ফলতে সময় নেয়না! এমন কথা প্রায়ই শোনা যায়। তবে জলপাইগুড়ির বইকুণ্ঠপুরের ফরেস্ট রেঞ্জার সঞ্জয় দত্ত এই বেদবাক্যের সত্যতা ভুল প্রমাণিত করতে গিয়ে হাড়ে হাড়ে টের পেলেন। এই দাপুচে ফরেস্ট রেঞ্জার পাইথন-কে জড়িয়ে ছবি তোলার পোজ দিচ্ছিলেন, আর এমন সময়েই বেঁকে বসে বিষাক্ত সরীসৃপটি।

এলাকায় পাইথন ধরা পড়ার পর থেকে জলপাইগুড়ির বইকুণ্ঠপুরে হইচই পড়ে গিয়েছিল। চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। সাপকে ততক্ষণে কাঁধে নিয়ে জনসমক্ষে দাঁড়িয়েছেন বইকুণ্ঠপুরের ফরেস্ট রেঞ্জার সঞ্জয় দত্ত। উপস্থিত স্থানীয় জনতার ভিড়ের মধ্যে তিনিই তখন ‘নায়ক’। কাঁধে সাপ নিয়ে চলছে সেলফি তোলার হিড়িক। সাপকে নিয়ে খোশ মেজাজে পোজ দিচ্ছিলেন ফরেস্ট রেঞ্জার। কিন্তু সাপ সে তো সাপই। সে তো আর বোঝে না সেলফির মাহত্ব্য ফলে বিগড়ে গেল সাপের মেজাজ। ক্রমেই ফরেস্ট রেঞ্জারের গলা পেঁচিয়ে ধরেত শুরু করে ঠাণ্ডা এই সরীসৃপটি।

[espro-slider id=10124]

উল্লেখ্য মূলত জনবসতি পূর্ণ এলাকায় সাপ ধরা পড়লে, সেখান থেকে সাপটিকে ধরে নিয়ে যায় বনদফতর। পরে ঘন জঙ্গলে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। এমনকি সাপটিকে ধরে নিয়ে যাওয়ারও কিছু নিয়ম রয়েছে। একটি থলের মধ্যে তাকে ভরতে হয়। কিন্তু সেলফির মোহ! সে কি আর ছাড়া যায়? আর তাই সেই মোহ ছাড়তে না পারায় , সাপকে কাঁধে নিয়েই ফটো তুলতে ব্যস্ত হয়ে যান ফরেস্ট রেঞ্জার সঞ্জয় দত্ত। আর সেই সময়েই পাইথন আষ্টে-পিষ্টে চেপে বসে ফরেস্ট রেঞ্জারের গলায়। সময় মত বাকি বনকর্মীরা এসে ফরেস্ট রেঞ্জার সঞ্জয় দত্তকে বাঁচানোর ব্যবস্থা করেন। ফরেস্ট রেঞ্জার নির্দেশ দিতে থাকেন সাপের লেজটিকে ধরতে। তবে হ্যাঁ, সাহসী এই রেঞ্জার এতকিছু সত্ত্বেও একবারের জন্যও সাপের গলা চেপে ধরার নির্দেশ দেননি।

You May Share This
  • 13
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    13
    Shares

Leave a Reply