/অবশেষে মায়ের ছেলে মায়ের কোলে ফিরে এল

অবশেষে মায়ের ছেলে মায়ের কোলে ফিরে এল

 

Sarbani Dey, Kolkata: ২০০৯ সালের ২২শে অক্টোবর এন আর এস থেকে অপহৃত হয়ে গেছিল ৮ বছরের যাদব মন্ডল। আর তারপরই যাদবের মা কল্পনা মন্ডল মুচিপাড়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। আর এই অভিযোগের ভিত্তিতেই দুজন অপহরণকারী সুরিন্দর রায় এবং তার ভাই সিকন্দর রায় কে গ্রেফতার করেন পুলিশ। কিন্তু ধরা পরার কিছু দিনের মধ্যেই জামিন পেয়ে যায় অভিযুক্তরা। অবশেষে গোপন সুত্র মারফত ৮ই আগস্ট মুচিপাড়া থানার পুলিশ বিহারে সুরিন্দরের বাড়ি যান এবং সেখান থেকেই যাদব কে উদ্ধার করে। সর্বশেষে ১২ই আগস্ট মায়ের ছেলে মায়ের কোলে ফিরে আসে

পুলিশি সূত্রে খবর, দক্ষিন ২৪ পরগনার জয়নগরের বাসিন্দা কল্পনা মন্ডল। স্বামী অসিম মন্ডল গ্রামের বাড়িতেই থাকেন। ২০০৪ সাল থেকেই কল্পনা মন্ডল কলকাতার তিলজলায় একটি ভাড়া বাড়িতে ৩ জন সন্তানকে নিয়ে থাকতেন এবং কলকাতায় পরিচারিকার কাজ করতেন। আর এখানেই সুরিন্দর রায় নামে এক ট্রাক্সিচালকের সাথে আলাপ হয় কল্পনা মন্ডলের। ধীরে ধীরে এই আলাপ ঘনিষ্ঠ হয়ে উঠেছিল। এই ট্রাক্সিচালক সুরিন্দরের বাড়ি বিহারের বৈশালীতে। সেখানে তার স্ত্রী বর্তমান, কিন্তু তাদের কোনো সন্তান নেই। আর এই অপূর্ন সংসার পূর্ন করতেই সুরিন্দর তার ভাই সিকন্দরের সাহায্যে যাদবকে অপহরন করে

এর পাশাপাশি জানান, কল্পনা মন্ডল এই দুজনের প্রতি সন্দেহবশত মুচিপাড়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেন কিন্ত ধরা পরার কিছু দিনের মধ্যেই জামিন পেয়ে যায় সুরিন্দর ও সিকন্দার। আর তারপর থেকেই কল্পনাদেবী আবার সুরিন্দরের সঙ্গে যোগাযোগ রাখেন। এবং তার সঙ্গে কথাবার্তা বলেই কল্পনাদেবী নিশ্চিত হন যে, তার ছেলে যাদব, সুরিন্দরের বাড়িতেই রয়েছে। আর এরপর থেকেই কল্পনা দেবী নজর রাখতে থাকেন সুরিন্দরের উপর। তারপর হঠাৎ একদিন সুরিন্দরের ফোনে যাদবের ছবি দেখতে পায় কল্পনাদেবী। এবং তখনই সে সুরিন্দরের কাছে তার ছেলেকে ফিরিয়ে দেওয়ার অনুরোধ করে। কিন্তু সুরিন্দর কল্পনা দেবীকে উল্টে খুনের হুমকি দিতে থাকে

এরপর মাস কয়েক আগেই কল্পনা দেবী সুরিন্দরের ফোনের চিপ নিয়ে সোজা হাজির হন পুলিশের কাছে। ২০০৯ সালে যাদবকে অপহরণ করে, ৩ বছর নেপালে এক আত্মীয়ের বাড়িতে রাখেন সুরিন্দর। তারপর শেষ ৫ বছর বিহারেই ছিল যাদব। পুলিশের কাছে কল্পনা দেবী ও তার ছেলে কঠোর শাস্তি দাবি করেছেন সুরিন্দরের বিরুদ্ধে

Advertisements