ইউএস-বাংলার বিমান বিধ্বস্ত – হতাহত বাংলাদেশিদের তালিকা প্রকাশ

Share Bengal Today's News
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মিজান রহমান, ঢাকা, বেঙ্গলটুডে :

নেপালের কাঠমান্ডুতে বিধ্বস্ত ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমানের হতাহত বাংলাদেশিদের তালিকা প্রকাশ করেছে নেপালে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস। গত সোমবার বিধ্বস্ত হওয়া ওই বিমানটিতে ৩৬ জন বাংলাদেশি ছিলেন। তাদের মধ্যে চার কেবিন ক্রু ও ২২ যাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। আহত অবস্থায় কাঠমান্ডুর বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছে ১০ জন। দূতাবাস প্রকাশিত তালিকা অনুযায়ী নিহত বাংলাদেশি যাত্রীদের মধ্যে রয়েছেঃ-

ফয়সাল আহমেদ, আলিফুজ্জামান, বিলকিস আরা, বেগম হুরুন নাহার বিলকিস বানু, আখতারা বেগম, নাজিয়া আফরিন চৌধুরী, রকিবুল হাসান, হাসান ইমাম, মো. নজরুল ইসলাম, আঁখি মনি, মেহনাজ বিন নাসির, ফারুক হোসেন প্রিয়ক, তার মেয়ে প্রিয়ন্ময়ী তামারা, মতিউর রহমান, এস এম মাহমুদুর রহমান, তাহিরা তানভিন শশী রেজা, পিয়াস রায়, বেগম উম্মে সালমা, মো. নুরুজ্জামান, রফিক জামান, তার স্ত্রী সানজিদা হক বিপাশা ও তাদের ছেলে অনিরুদ্ধ। এ ছাড়া পাইলট আবিদ সুলতান, ফার্স্ট অফিসার পৃথুলা রশিদ, কেবিন ক্রু খাজা হোসেন ও কে এইচ এম শাফিকও বিমান দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। নিহতদের লাশ কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন ইউনিভার্সিটি টিচিং হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

বাংলাদেশের বেসরকারি এয়ারলাইনস ইউএস বাংলা মঙ্গলবার পাইলট আবিদ সুলতানের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে। কাঠমান্ডুর ত্রিভূবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান দুর্ঘটনায় তিনি আহত হয়েছিলেন। ওই দুর্ঘটনায় ৩৯ জন নিহত হন। সংস্থার জেনারেল ম্যানেজার কামরুল ইসলাম নগরীর বারিধারার প্রধান কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের জানান, বিধ্বস্ত ইউ এস বাংলা এয়ারলাইন্সের পাইলট আবিদ সুলতান গত সোমবার বিয়োগান্তক এই দুর্ঘটনায় আহত হন। পরে কাঠমান্ডুর স্থানীয় একটি হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। বিমানটিতে আগুন ধরে যাওয়ার সময় বোর্ডিং-এ থাকা দু’জন পাইলট, দু’জন কেবিন ক্রুর অবস্থানের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, একজন পাইট, একজন কো-পাইলট ও একজন কেবিনক্রুর মৃত্যুর ব্যাপারে নিশ্চিত হয়েছে। তবে অপর কেবিন ক্রু ভাগ্যে কি ঘটেছে তা এখানো নিশ্চিত জানা যায়নি। ইসলাম আরো বলেন, এয়ারলাইন্সের সাত সদস্যের একটি টিম ক্ষতিগ্রস্তদের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে একটি বিশেষ ফ্লাইট মঙ্গলবার বেলা ১১টা ১০ মিনিটের দিকে কাঠমান্ডু পৌঁছায়।

আহত ১০ জনের মধ্যে রয়েছেন-রিজওয়ানুল হক, ইমরানা কবির হাসি, শাহরিন আহমেদ, শেখ রাশেদ রুবাইয়াত, আলমুন নাহার অ্যানি, মেহেদী হাসান, সাঈদা কামরুন্নাহার স্বর্ণা, কবির হোসেন, মো. শাহীন বেপারি, ইয়াকুব আলী ও রিজওয়ানুল হক। তাদের মধ্যে ইয়াকুব আলী নরভিক হাসপাতালে এবং রিজওয়ানুল হক ওম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বাকিরা কাঠমান্ডু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

সোমবার দুপুর ২টা ২০ মিনিটে কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত হয় বিএস-২১১ বিমানটি। ঢাকা থেকে ছেড়ে যাওয়া বিমানটিতে ৬৭ জন যাত্রী ও চারজন ক্রু ছিল। তাদের মধ্যে ৫১ জন নিহত হয়েছে বলে সর্বশেষ জানা গেছে।

সম্পর্কিত সংবাদ